kalerkantho

হিন্দু দুই ছেলের মরদেহ যে কারণে না পুড়িয়ে 'কবর' দিল পরিবার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৭:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হিন্দু দুই ছেলের মরদেহ যে কারণে না পুড়িয়ে 'কবর' দিল পরিবার

পুলিশের কথায় কান না দিয়ে ভারতের ইসলামপুরে গুলিতে নিহত দুই ছাত্রের মরদেহ কবর দিয়েছে তাদের পরিবার। শুক্রবার দুপুরেই ময়নাতদন্তের পর তাপস আর রাজেশের মরদেহ দুই পরিবারের হাতে তুলে দিয়েছিল পুলিশ।

কিন্তু তাদের মরদেহ পুড়িয়ে ফেলতে অস্বীকার করেছে দু’জনের পরিবারই। তাদের পরিবারের দাবি, এই মৃত্যুর তদন্তভার তুলে দিতে হবে সিবিআই-এর হাতে।

সিবিআই তদন্ত হলে নতুন করে ময়নাতদন্তের সম্ভাবনার কথা মাথায় রেখেই মরদেহ না পুড়িয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত। এই সিদ্ধান্তে দুই পরিবারের পাশে সক্রিয়ভাবেই দাঁড়িয়েছেন এলাকার মানুষজন।

তিস্তা খালের পাশে দাড়িভিট স্কুল লাগোয়া শ্মশানের কাছেই একটি জমিতে দুই ছাত্রের মরদেহ কবর দেওয়া হয়। পরিবারের অভিযোগ, দ্রুত মরদেহ সৎকারের জন্য চাপ দিয়ে চলেছে পুলিশ। পুলিশ মরদেহ তুলে নিয়ে যেতে পারে, সেই আশঙ্কা থেকে পালা করে পাহারাও দিচ্ছেন এলাকার লোকজন।

বৃহস্পতিবার ইসলামপুরের দাড়িভিট হাইস্কুলে দুই শিক্ষক নিয়োগকে কেন্দ্র করে ছাত্রছাত্রীদের বিক্ষোভ চরমে ওঠে। বিশাল পুলিশবাহিনী যায় ঘটনাস্থলে। এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। তার মধ্যেই রাস্তার উপর গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু হয় আইটিআই-এর ছাত্র রাজেশ সরকারের। রাজেশ এই স্কুলের সাবেক ছাত্র।

স্কুলের মাঠের ঠিক উল্টো দিকে ইসলামপুর কলেজের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র তাপস বর্মণকে রক্তাক্ত গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। শুক্রবার তার মৃত্যু হয় হাসপাতালে। তাপসও দাড়িভিট হাইস্কুলের সাবেক ছাত্র। তাপসের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা বিপ্লব সরকার নামে আরও এক ছাত্রের পায়ে গুলি লাগে। বিপ্লব এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বিপ্লব দাড়িভিট হাইস্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র।

মন্তব্য