kalerkantho


সৌদির বিরুদ্ধে হজ নিয়ে রাজনীতি করার অভিযোগ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ আগস্ট, ২০১৮ ২১:৩১



সৌদির বিরুদ্ধে হজ নিয়ে রাজনীতি করার অভিযোগ

সৌদি আরব নির্ধারণ করে দেয় কোটা সিস্টেম অনুসারে কোন দেশ থেকে ঠিক কতো সংখ্যক হজযাত্রী রিয়াদে পৌঁছবেন। তবে মধ্যপ্রাচ্যের কিছু দেশের অভিযোগ হজ নিয়ে রাজনীতি করছে সৌদি আরব।

এদিকে গত বছর প্রায় ২৩ লাখ ৫০ হাজার হজযাত্রী সৌদি আরবে গেছেন। এ বছর ধারণা করা হচ্ছে সেই সংখ্যা ছাড়িয়ে যেতে পারে। এ বছর ১৯ আগস্ট থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে হজ পালন শুরু হবে।

সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স মুহাম্মদ বিন সালমানের ভিশন ২০৩০ অনুসারে তেলের বাইরে গিয়ে পর্যটন খাতের ওপর গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। সে অনুযায়ী কাজও শুরু করেছে দেশটি।

অন্যদিকে নিরাপত্তা ইস্যুতে বেশ কয়েক বছর ধরে কোটা পদ্ধতিতে বিভিন্ন রাষ্ট্র থেকে হজযাত্রী যাওয়ার সংখ্যা ঠিক করে দিচ্ছে সৌদি। এতে করে বিপাকে পড়তে হচ্ছে মুসলিম রাষ্ট্রগুলোকে।

এমনকি গণমাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে, হজকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে গত দু'বছর ধরে পররাষ্ট্রনীতি ঠিক করছে সৌদি।

গত বছরের জুনে বাহরাইন, মিসর, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং সৌদি আরব কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে অবরোধ আরোপ করে কাতারের বিরুদ্ধে। এর পর দেশটির কাছে কিছু শর্ত ধরিয়ে দেয় সৌদি জোট। যেগুলো পূরণ করা সম্ভব নয় বলে সাফ জানিয়ে দেয় দোহা।

২০১৭ সালে গুটিকয়েক কাতারি নাগরিক হজ পালন করতে যান। তার আগের বছরে ১২ হাজার নাগরিককে সৌদি থেকে বের করে দেওয়ার জেরে সেই সংখ্যা কমতে থাকে। চলতি বছরও হাতে গোনা কিছু কাতারি হজযাত্রী রিয়াদে পৌঁছেছেন।

এর আগেও কাতার বারবার অভিযোগ করে বলেছে, হজ নিয়ে রাজনীতি করছে সৌদি আরব। গত বছর হজের সময় দোহার তরফ থেকে অভিযোগ করে বলা হয়, সে দেশের নাগরিকদের হজ পালন করতে দিচ্ছে না সৌদি।

লেবাননের নাগরিকরাও একই ধরনের অভিযোগ করছেন। তাদের দাবি, গত বছর সাদ হারিরিকে ঘিরে সৌদি আরবে যা ঘটেছে, তার ফলাফল পড়ছে হজে। আগে হারিরির সঙ্গে সৌদির সম্পর্ক মধুর থাকলেও বর্তমানে তাতে চিড় ধরায় পরম্পরা বদলে গেছে। যার ফল পড়ছে হজযাত্রীদের ওপর।



মন্তব্য