kalerkantho


'এই সময়' এর প্রতিবেদন

চীনে ছাপা হচ্ছে বাংলাদেশ-ভারতসহ বিভিন্ন দেশের নোট!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ আগস্ট, ২০১৮ ১৩:১১



চীনে ছাপা হচ্ছে বাংলাদেশ-ভারতসহ বিভিন্ন দেশের নোট!

ভারতীয় নোট ছাপানো হচ্ছে চীনের ছাপাখানায়! এমনই এক চাঞ্চল্যকর প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে হংকংয়ের একটি সংবাদমাধ্যমে। সেখানে থাইল্যান্ড, শ্রীলঙ্কাসহ বাংলাদেশের নোটও ছাপানো হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে এক প্রতিবেদনে।

কমিউনিস্ট শাসিত লাল চীনে ব্যাংক নোট ছাপানোর ভার আছে 'চায়না ব্যাংকনোট প্রিন্টং অ্যান্ড মিন্টিং কর্পোরেশন (সিবিপিএমসি) এর ওপর। 

সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট-এ প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, রাষ্ট্রায়াত্ত সিবিপিএমসি এর ছাপাখানাগুলোতে এই মুহূর্তে জোরকদমে চলছে নোট ছাপানোর কাজ। আর সরকারের নির্দেশ মতো ঠিক সময়ে অর্ডার সাপ্লাই করতে গিয়ে রীতিমতো হিমশিম অবস্থা সেখানকার কর্মীদের। অথচ সাম্প্রতিক সময়ে চীনে ই-লেনদেনের হার বাড়ায় নগদের চাহিদা উল্লেখযোগ্য কমেছে। তাহলে হঠাৎ করে এত নোট ছাপা হচ্ছে কী কারণে? 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সিবিপিএমসি এর এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে প্রদিবেদনে জানানো হয়, চীনের ছাপাখানাগুলোতে এখন যে পরিমাণে নোট ছাপা হচ্ছে তার একটা ক্ষুদ্র অংশ হচ্ছে 'ইউয়ান' (চীনের মুদ্রা)। বাকি অধিকাংশটাই 'বিদেশি গ্রাহকদের জন্য' ছাপা হচ্ছে। 

সূত্র উদ্ধৃত করে প্রতিবেদনে আরো জানানো হয়েছে, ২০১৫ সাল থেকে প্রতিবেশী দেশ নেপালের ১০০ নেপালি টাকার নোট ছাপানো হচ্ছে চীনের সরকারি মালিকানাধীন ছাপাখানাগুলোতে। সম্প্রতি ভারতসহ থাইল্যান্ড, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, মালয়েশিয়া, ব্রাজিল এবং পোল্যাল্ডের ব্যাংকনোট ছাপার কাজ পেয়েছে তারা। নোট জাল করার ঘটনা রুখতে এই দেশগুলো চীনের সংস্থাকে তাদের জন্য নোট ছাপার দায়িত্ব  দিয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। 

এখানেই শেষ নয়, আরো একাধিক দেশ সিবিপিএমসি-কে তাদের ব্যাংকনোট ছাপানোর কাজ দিতে চলেছে বা দেওয়ার কথা ভাবছে বলে জানা গিয়েছে। যদিও জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে ওই দেশগুলো বেজিংয়ের ওপর এ সংক্রান্ত তথ্য প্রকাশ্যে না আনার শর্ত চাপিয়েছে। 
সূত্র: এই সময়



মন্তব্য