kalerkantho


তালেবানের তাণ্ডবে বিচ্ছিন্ন আফগানিস্তানের শহর গজনী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ আগস্ট, ২০১৮ ২২:৩৩



তালেবানের তাণ্ডবে বিচ্ছিন্ন আফগানিস্তানের শহর গজনী

আফগান রাজধানী থেকে পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন গজনী। কাবুল থেকে ২ ঘণ্টা দূরে গজনী শহরে শুক্রবার থেকে লুকিয়ে আছে তালেবান জঙ্গিরা। চলছে তালেবান-নিরাপত্তারক্ষীদের গুলিযুদ্ধ। তালেবান জঙ্গিদের হামলায় গত ২ দিনে নিহত ২৫ পুলিশ ও ১ সাংবাদিক। শহরটিকে কাবুল থেকে পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন করেছে তালেবানরা। টেলিফোন সংযোগ থেকে সড়ক যোগাযোগ পুরোপুরি ক্ষতিগ্রস্ত।

মূলত কাবুল-গজনী সংযোগকারী সড়কেই ঘাঁটি তালেবান জঙ্গিদের। গজনী দখল করার লক্ষ্যেই তালেবানদের এই বড়সড় হামলা। শুক্রবার থেকে চলা গুলিযুদ্ধ রবিবার বন্ধ হোলেও জঙ্গিদের লুকিয়ে থাকার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন আফগানিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী। গজনীর বিভিন্ন সরকারি দপ্তর তছনছ করেছে জঙ্গিরা। শহরের টেলিকম লাইন পুরোপুরি নষ্ট হয়ে যাওয়ায় প্রশাসনের তরফে সরাসরি সাহায্য পাচ্ছে না গজনী। গজনীর উপর তালেবানদের হামলা প্রশাসনকে জঙ্গিদের বড় চ্যালেঞ্জ বলেই মনে করা হচ্ছে।

২০১৫ সাল কুন্দুজ প্রদেশ দখলের পরিকল্পনা করে তালেবান। সেই উদ্দেশ্য সফল হয়নি। নতুন করে তাই গজনীকে দখল করে নিজেদের অস্তিত্বের জানান দিতে তৎপর হয় তালেবান। আফগান সেনাদের তৎপরতা ও ন্যাটো বাহিনীর সাহায্যের ফলে আফগানিস্তানের বিভিন্ন শহর দখলের চেষ্টা করলেও সফল হয়নি তালেবান। তবে শুক্রবারের হামলা এতটাই ভয়ানক ছিল যে, ২ দিন ধরে গজনী তালেবানদের দখলেই ছিল। এখনও শহরকে জঙ্গিমুক্ত বলতে পারছে না আফগান প্রশাসন।

তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদের দাবি, গজনীর বিভিন্ন এলাকায় এখনও তৎপর তালেবান। প্রচুর অস্ত্র লুঠ করা হয়েছে, গজনীর একাধিক এলাকা এখনও তালেবানদের দখলেই। প্রশাসনিক বাহিনী তালেবানদের সঙ্গে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে। এমনকি জঙ্গিরা যাতে আত্মসমর্পন করে তার জন্য তালেবানদের সঙ্গে প্রশাসনিক বৈঠকও করছে আফগান প্রশাসন। অবশ্য জল্পনা দানা বাঁধছে ফেসবুকে তালেবানেরই করা পোস্ট ঘিরে। যেখানে দাবি করা হচ্ছে গজনীর একমাত্র জেলও এখন তালেবানদের দখলে। সেখান থেকে ইতিমধ্যে ১০০ তালেবান বন্দিদের মুক্ত করা হয়েছে।



মন্তব্য