kalerkantho


পিটিয়েছে প্রেমিকার বাবা, কিশোরের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ জুলাই, ২০১৮ ২১:৩২



পিটিয়েছে প্রেমিকার বাবা, কিশোরের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কের অভিযোগে এক কিশোরকে তুলে নিয়ে গিয়ে মারধরের অভিযোগ উঠেছে ওই মেয়ের বাবার বিরুদ্ধে। পরে সেই কিশোরের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় কিশোরের বাবা মেয়ের বাবার বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ করেছেন। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মেদিনীপুরের কাঁথির দেশপ্রাণ ব্লকের ঘোড়াঘাটায়। প্রদীপ মাইতি (১৬) নামে ওই কিশোরের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, একাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিল প্রদীপ। তার বাবা নাড়ুগোপাল মাইতির অভিযোগ, মেয়ের সঙ্গে সম্পর্ক থাকার অভিযোগে বাহারছনবেড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা দেবু জানা গত রবিবার সন্ধ্যায় ভাড়াটে লোকজন দিয়ে মোটর সাইকেলে করে তার ছেলেকে তুলে নিয়ে যান।

দেবু মাছ চাষ করেন। শুনিয়ায় তার মাছের খামার রয়েছে। খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে নাড়ুগোপাল শুনিয়ায় তার খামারে যান। তার দাবি, সেখানে তিনি দেখেন, প্রদীপকে মারধর করা হচ্ছে।

কেন তার ছেলেকে মারধর করা হচ্ছে জানতে চাইলে বলা হয়, প্রদীপ এক মেয়েকে বিরক্ত করে। তাই তাকে শাস্তি দেওয়া হচ্ছে।

নাড়ুগোপালবাবুর বক্তব্য, আমি কোনোরকমে ছেলেকে ওদের কবল থেকে ছাড়িয়ে বাড়ি চলে যেতে বলে গ্রামে ফিরে আসি। প্রতিবেশীদের কয়েক জনকে সমস্ত ঘটনা জানাই। কিন্তু পরে তিনি জানতে পারেন ছেলেকে আবারো ধরে নিয়ে গেছে দেবুর লোকজন।

তাদের একজনকে তিনি ফোন করলে সে বলে প্রদীপকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু রাতভর ছেলে না ফেরায় তিনি খোঁজখবর শুরু করেন। সোমবার সকালে বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে একটি গাছে প্রদীপের ঝুলন্ত মরদেহ দেখেন গ্রামবাসীরা।

পরে কাঁথি থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়। নাড়ুগোপালবাবু ছেলেকে মারধর ও আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ করলে ইতোমধ্যেই জড়িত সন্দেহে তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।



মন্তব্য