kalerkantho


ভিজছেন ভিনদেশের প্রধানরা, ছাতা মাথায় রেখে সমালোচিত পুতিন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ জুলাই, ২০১৮ ১৯:২৪



ভিজছেন ভিনদেশের প্রধানরা, ছাতা মাথায় রেখে সমালোচিত পুতিন

রাশিয়া বিশ্বকাপের ফাইনালের পর সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ব্যাপক সমালোচিত প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে অতিথি দুই রাষ্ট্রপ্রধান মুষলধারে বৃষ্টিতে ভেজার সময় তার মাথার ওপর ছাতা ধরে ছিলেন এক নিরাপত্তাকর্মী।

আর সে কারণেই আয়োজক রাশিয়ার রাষ্ট্রপ্রধানের সৌজন্যবোধ নিয়ে টুইটার-ফেসবুকে অনেকেই সমালোচনা করছেন। দেখা গেছে, ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে বিশ্বকাপ ফ্রান্স জেতার পর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান শুরুর সঙ্গে সঙ্গে বৃষ্টি শুরু হয়।

তার মধ্যেই অনুষ্ঠানে গেছেন ফ্রান্স এবং ক্রোয়েশিয়ার প্রেসিডেন্ট। রয়েছেন ফিফার কর্মকর্তারাও। বৃষ্টিতে সবাই কার্যত কাকভেজা। কিন্তু আয়োজক দেশ হয়েও একমাত্র রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের মাথায় ছাতা। অতিথিদের মাথায় জোটেনি কিছুই।

সেটা কী আয়োজনের দুর্বলতা? যে দেশ কার্যত মসৃণভাবে  বিশ্বকাপ আয়োজন করেছে, সেখানে সামান্য বৃষ্টির জন্য প্রস্তুতি থাকবে না? এ ভাবেই সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন ক্ষেত্রের বিখ্যাত ব্যক্তিত্বরা পর্যন্ত প্রশ্ন তুলেছেন আয়োজনের ত্রুটি-বিচ্যুতি নিয়ে। এমনকি পুতিনের সৌজন্যবোধ নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।

ফিফা কর্মকর্তাদের যদি বাদও দেওয়া যায়, অন্তত দুই রাষ্ট্রপ্রধানের জন্যও ছাতা জুটল না? আর যখন জুটলই না, তখন আয়োজক হয়ে পুতিনই বা কেন নির্লজ্জের মতো ছাতা মাথায় দাঁড়িয়ে থাকলেন? তিনি নিজেও তো ছাতা সরিয়ে সবার সঙ্গে ভিজতে পারতেন। টুইটার-ফেসবুকে ঘুরছে এই সব প্রশ্ন। অনেকে আবার ‘ক্ষমতার দম্ভ’ বলেও খোঁটা দিয়েছেন।

আইএসের হুমকি ছিল। নিরাপত্তা নিয়ে সংশয় ছিল। কিন্তু সে সব উড়িয়ে যেভাবে নির্বিঘ্নে বিশ্বকাপ শেষ হয়েছে, তার জন্য বিশ্ববাসীর প্রশংসা কুড়িয়েছে রুশ তথা পুতিন প্রশাসন।

কিন্তু সব অর্জনে পানি ঢেলে দিয়েছে ‘ছাতাকাণ্ড’। যতই মাথায় ছাতা থাকুক, সেই বৃষ্টিতে কী রুশ প্রেসিডেন্টও ভিজলেন না? আর সেই ভেজাটা একেবারেই নির্লজ্জভাবে, দাবি নেটিজেনদের।



মন্তব্য