kalerkantho


চশমা উপহার নিয়ে জরিমানা গুনলেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ জুন, ২০১৮ ১৯:০৫



চশমা উপহার নিয়ে জরিমানা গুনলেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী

ক্ষমতার অপব্যবহার করে অর্থ আত্মসাতের দায়ে ক্ষমতাবান অনেকেরই জেল জরিমানার নজির রয়েছে। তবে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো যে কারণে জরিমানা গুনেছেন, তা জানলে অনেকেই অবাক হবেন।

ইতোমধ্যেই একশ ডলার জরিমানা পরিশোধ করেছেন তিনি। জানা গেছে, কানাডার পার্লামেন্টের নীতিশাস্ত্র পর্যবেক্ষকরা এই জরিমানা ধার্য করেছিলেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, উপহার হিসেবে একজোড়া সানগ্লাস পেয়েছিলেন তিনি। তবে তা গ্রহণের এক মাসের মধ্যে এ ব্যাপারে কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেননি

সে কারণে ‘স্বার্থের সংঘাত’ বা ‘কনফ্লিক্ট অফ ইন্টারেস্ট আইনের’ অধীনে তাকে ওই একশ ডলার জরিমানা করে পার্লামেন্টের নীতিশাস্ত্র পর্যবেক্ষকরা।

ট্রুডোর প্রেস সেক্রেটারি এলিনোর ক্যাটেনারো এক বিবৃতিতে বিষয়টি স্বীকার করেছেন। তিনি লেখেন, আসলে উপহারটি হাতে পাওয়ার পর ৩০ দিনেও তার ঘোষণা দেওয়া হয়নি, সেটা ছিল স্রেফ প্রশাসনিক ভুল।

জানা গেছে, গত গ্রীষ্মে ট্রুডোকে ফেলো আর্থলিংস নামের একটি স্থানীয় প্রস্তুতকারকের বানানো দুই জোড়া চশমা উপহার দেন কানাডার গ্রামাঞ্চলীয় পিইআই কমিউনিটির প্রধান ম্যাকলুহান। বাজারে এই দুই জোড়া চশমার খুচরা মূল্য তিনশ ও পাঁচশ ডলার।

ট্রুডোকে ওই সানগ্লাসে দেখা যায় ২০১৭ সালে ভিয়েতনাম সফরের সময়। প্রস্তুতকারকদের জন্য বড় ধরনের পাওয়া ছিল সেটা। প্রতিষ্ঠানটির মুখপাত্র সিডনি সেগি তার পরই মন্তব্য করেছিলেন, ফেলোর আর্থলিংসের এক জোড়া সানগ্লাস পরছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী এটি ছিলো আমাদের জন্য দারুণ উত্তেজনার একটি বিষয়।

তার সেই মন্তব্যের পরই নড়েচড়ে বসে পার্লামেন্টের নীতিশাস্ত্র পর্যবেক্ষকরা। কারণ, এর আগেও একই অপরাধে জাস্টিন ট্রুডোর ধরা পড়ার রেকর্ড রয়েছে।



মন্তব্য