kalerkantho


ইউক্রেন থেকে গোপনে ৪ লাখ ডলার নিয়েছিলেন ট্রাম্পের আইনজীবী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ মে, ২০১৮ ১০:০৫



ইউক্রেন থেকে গোপনে ৪ লাখ ডলার নিয়েছিলেন ট্রাম্পের আইনজীবী

ছবি অনলাইন

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ব্যক্তিগত আইনজীবী মাইকেল কোয়েন ইউক্রেন থেকে অন্তত চার লাখ ডলার নিয়েছিলেন। ট্রাম্পের সঙ্গে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট পেট্রো পোরোশেঙ্কোর কথা বলার ব্যবস্থা করে দিতে গোপনে এই অর্থ নিয়েছিলেন তিনি।

ইউক্রেনের নেতার পক্ষে কাজ করা মধ্যস্থতাকারীরা ওই অর্থ দেওয়ার ব্যবস্থা করেছিলেন বলে জানিয়েছে বিবিসি। যুক্তরাষ্ট্রের আইনানুযায়ী এই ভূমিকার জন্য কোয়েনের ইউক্রেনের প্রতিনিধি হিসেবে তালিকাভুক্ত হওয়ার কথা থাকলেও তিনি তা ছিলেন না।  

তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মাইকেল কোয়েন। এই অর্থ দেওয়ার বিষয়টি ট্রাম্প জানতেন এমন কোনো প্রমাণও পাওয়া যায়নি।

গত বছরের জুনে হোয়াইট হাউসে ওই বৈঠকটি হয়েছিল। বৈঠক শেষে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট দেশে ফিরে যাওয়ার কিছু দিনের মধ্যেই তার দেশের দুর্নীতি দমন সংস্থা ট্রাম্পের সাবেক প্রচারণা ব্যবস্থাপক পল ম্যানাফোর্টকে নিয়ে শুরু করা তাদের তদন্ত বন্ধ করে দেয়।

ইউক্রেনের এক ঊর্ধ্বতন গোয়েন্দা কর্মকর্তা হোয়াইট হাউস পরিদর্শনের আগে এ ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন।

তিনি জানিয়েছেন, ইউক্রেনের রেজিস্ট্রার লবিস্ট ও ওয়াশিংটন ডিসির দূতাবাস ট্রাম্পের সঙ্গে পোরোশেঙ্কোর সংক্ষিপ্ত একটি ছবি তোলার সুযোগ করতে পারলেও এর বেশি কিছু করতে পারেনি। কিন্তু পোরোশেঙ্কো চাইছিলেন এমন কিছু যাকে ‘বৈঠক’ হিসেবে বলা যেতে পারে।

এরপর ইউক্রেনের এক বিশ্বস্ত এমপিকে তিনি দায়িত্ব দেন। ওই এমপি ব্যক্তিগতভাবে পরিচিতদের মাধ্যমে কাজ করার সিদ্ধান্ত নেন। এভাবেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ব্যক্তিগত আইনজীবী মাইকেল কোয়েনের সঙ্গে যোগাযোগ হয়। কোয়েনকে চার লাখ ডলার দেওয়া হয়।

অন্য একটি সূত্র কোয়েনকে মোট ছয় লাখ ডলার দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে। অর্থ চার বা ছয় লাখ যাই হোক না কেন, ঘটনা যে ঘটেছে বিভিন্ন সূত্র থেকে তার নিশ্চয়তা মিলেছে বলে জানাচ্ছে বিভিন্ন গণমাধ্যম।


মন্তব্য