kalerkantho


গাজায় ইসরায়েলি বর্বরতা, চাপে হামাস!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ মে, ২০১৮ ২০:৩৬



গাজায় ইসরায়েলি বর্বরতা, চাপে হামাস!

ইহুদিবিদ্বেষ, কট্টর ইসলামপন্থা এবং ফিলিস্তিনি জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসের মূলনীতি নিয়ে ১৯৮৫ সালে চালু হয় হামাস। বর্তমানে ফিলিস্তিনের ক্ষমতায় রয়েছে দলটি।

২০০৫ সালের সংসদ নির্বাচনে একশ ৩২টি আসনের মধ্যে হামাস সে সময় ৭০টি আসনে জয়লাভ করে। আরবলীগ ও ইসলামি সম্মেলন সংস্থার পর্যবেক্ষকরা এবং আন্তর্জাতিক অন্যান্য পর্যবেক্ষকরা হামাসের ব্যাপক জনপ্রিয়তার কথা উল্লেখ করে ওই নির্বাচনকে সুষ্ঠু বলে ঘোষণা করে। বিষিয়ে উঠেছে গাজার বাসিন্দাদের জীবন

ফলে ফিলিস্তিনে ইসমাইল হানিয়ার নেতৃত্বে গঠিত হয় হামাসের সরকার। অভ্যন্তরীণ জনসমর্থন ও অন্তবর্তীকালীন ফিলিস্তিনি সংবিধানের আলোকে এগিয়ে যায় হামাস।

কিন্তু আব্বাসের স্বশাসন কর্তৃপক্ষ হামাস সরকারকে স্বীকৃতি দিতে অস্বীকার করে এবং এভাবে দুই পক্ষের মধ্যে বিভেদ জোরদার হয় এবং সংঘাত তুঙ্গে উঠে ২০০৭ সালে যখন এক লড়াইয়ে হামাস গাজা দখল করে।

সম্প্রতি ইসরায়েলি স্নাইপারের গুলিতে নিহতের সংখ্যা একশ ছাড়িয়ে যাওয়ার পর আবারো চাপে পড়েছে হামাস। হামাসের শাসনে গাজা উপত্যকার মানুষের জীবনধারনের মান বদলে যাওয়া তো দূরের কথা, একেবারে বিষিয়ে উঠেছে।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরার প্রতিবেদক বার্নার্ড স্মিথ গাজা থেকে বলেন, সেখানে এখন চাপে পড়েছে হামাস।

গাজার কারো বাবা মারা গেছে তো কারো ভাই মারা গেছে। অনেকে স্বামী হারিয়েছে, অনেকে হারিয়েছে আদরের সন্তান। কপালের জোরে যাদের পরিবারের কাউকে হারাতে হয়নি, সেই তাদেরও স্বজন হারানোর শোক সহ্য করতে হয়েছে।

এমন পরিবার খুঁজে পাওয়া যাবে না, যে পরিবারকে ইসরায়েলি বাহিনীর বুলেট অতিষ্ঠ করে তোলেনি। এখনো অনেকের শোবার ঘরের বিছানার চাদরে লেগে আছে রক্তের দাগ।

ইসরায়েলি স্নাইপারের গুলিতে পঙ্গু হয়ে দিনাতিপাত করছে বহু ফিলিস্তিনি। হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে কাতরাচ্ছে অনেকে।

সেই সঙ্গে রয়েছে অর্থনৈতিক টানাপড়েন। গাজা উপত্যকায় দীর্ঘ সময় ধরে চলমান সহিংসতায় অনেকের মানসিক অবস্থা একেবারে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

সম্প্রতি যে সহিংসতা শুরু হয়েছে, তাতে বহু ফিলিস্তিনি চরম হতাশা আর শঙ্কার মধ্য দিয়ে দিন পার করছে। দীর্ঘ সময় ধরে অত্যাচারিত হতে হতে তারা মুক্তির আশা প্রায় হারিয়ে ফেলছে।

একইভাবে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া ডাক্তারদের মানসিক অবস্থাও বেশ নাজুক হয়ে পড়ছে। দীর্ঘ সময় ধরে গুলিবিদ্ধ আহত ফিলিস্তিনিদের চিকিৎসা দিতে দিতে তারাও মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ছেন।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরার প্রতিবেদক হোদা আবদেল হামিদ গাজা থেকে জানান, সেখানে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে বহু মানুষ।

তিনি আরো জানান, অনেকের জন্য বেঁচে থাকা কষ্টকর হয়ে পড়েছে। সহিংসতার মধ্য দিয়ে জীবন পার করতে গিয়ে পারিবারিক জীবনও অসহিষ্ণু হয়ে পড়ছে। বিশেষ করে শিশুরা আক্রমণাত্মক হয়ে যাচ্ছে।



মন্তব্য