kalerkantho


২০১৯, বিজেপি হবে ফিনিশ : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ মার্চ, ২০১৮ ১৭:২০



২০১৯, বিজেপি হবে ফিনিশ : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

সমাবেশ ছিল নারী দিবস উপলক্ষে। সেই মঞ্চ থেকেই বিজেপিকে টার্গেট করলেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ত্রিপুরায় লেনিনের মূর্তি ভাঙা কাণ্ডে বিজেপির তীব্র নিন্দা করে তাঁর অভিযোগ, বিজেপি বিভেদের রাজনীতি করছে। মমতার দাবি, ‘২০১৯, বিজেপি হবে ফিনিশ।’

এখন তাঁর পাখির চোখ যে লোকসভা ভোট তা আরও একবার স্পষ্ট করে দিলেন তৃণমূল নেত্রী। মূর্তি ভাঙার প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন, ‘লেনিনের মূর্তি যারা ভেঙেছে তাদের নিন্দা করি। নিন্দা করি শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মূর্তি ভাঙাকেও। ৫টা মাওবাদী কী করল, তার জন্য সরকারকে কেন দোষারোপ করা হবে?’

বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষকেও নাম-না করে একহাত নেন মমতা। বলেন, ‘বাংলার মানুষ কু কথা বলে না। বিজেপি বিভেদের রাজনীতি করছে। দার্জিলিং-এও তাই করেছিল। ত্রিপুরাতেও করেছে।’

‘যারা সাম্প্রদায়িক ভাগাভাগি করে তাদের বাংলা চায় না, তাই একটি ভোটও যেন বিজেপি না-পায়’ - আহ্বান জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী।

ত্রিপুরায় লেনিন মূর্তি ভাঙার প্রতিবাদের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় বুধবার সকালে কেওড়াতলা শ্মশানের সামনে ভেঙে দেওয়া হয় শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মূর্তি। প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বঙ্গ বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ টার্গেট করেছিলেন বাম ও তৃণমূলকেই। বৃহস্পতিবার মেয়ো রোডে নারী দিবসের সভা থেকে তারই জবাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর সাফ কথা, কিছু মাওবাদী এসে মূর্তি ভেঙেছে, তার জন্য সরকারকে দোষারোপ কেন?

লেনিন মূর্তি ভাঙার তীব্র প্রতিবাদ করেছিলেন মমতা। জানিয়েছিলেন, লেনিন তাঁর নেতা নয়। কিন্তু বাংলার মানুষ সুভাষ-রবীন্দ্রনাথকে যেমন সম্মান করে, তেমনই অন্য মনীষীদেরও শ্রদ্ধা করে। ফলে এই মূর্তি ভাঙার সংস্কৃতি কোনওভাবেই সমর্থনযোগ্য নয়। ঘটনাচক্রে সেই একই পাকে পড়েছে তাঁর বাংলাও। ত্রিপুরায় লেননি মূর্তি ভাঙার প্রতিবাদে কলকাতায় ভেঙে দেওয়া হয়েছে শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মূর্তি, কালি লেপা হয়েছে মূর্তির মুখে। যাঁরা এই কাজ করেছেন, তাঁদের মধ্যে একজনকে মাওবাদী কার্যকলাপে যুক্ত থাকার অপরাধে আগেও গ্রেপ্তার করেছিল এসটিঅফ। ‘ব়্যাডিক্যাল’ নামে একটি সংগঠনের পোস্টারও পাওয়া গিয়েছে। মূলত তারাই এই মূর্তি ভাঙার কর্মসূচি নিয়েছিল। সেদিনই মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন, ‘মমতা তাঁর বার্তা দিয়েছেন। মূর্তি ভাঙার সংস্কৃতি বাংলার মাটিতে কোনোরকমভাবে বরদাস্ত করা হবে না।’

এদিন মমতা জানান, লেনিন মূর্তি ভাঙা যেমন তিনি সমর্থন করেন না, তেমনি শ্যামাপ্রসাদের মূর্তি ভাঙাও নয়। নাম না করে দিলীপ ঘোষের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে তিনি বলেন, কিছু মাওবাদী মূর্তি ভেঙেছে। তার জন্য সরকারকে দোষারোপ কেন করা হচ্ছে? এদিন তিনি ফের বলেন, বামেদের বিরুদ্ধে লড়াই করেই তৃণমূল ক্ষমতায় এসেছে। কিন্তু কোনওভাবেই বামেদের উপর আক্রমণ করা হয়নি। কেননা, তাঁরা বদল চেয়েছিলেন বদলা নয়। এটা যে বাংলার সংস্কৃতি নয় তা বারবার বুঝিয়ে দেন মমতা।

সূত্র: এই সময়



মন্তব্য