kalerkantho


'সু চিকে বিচারের মুখোমুখি করা যেতে পারে'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১২:২৭



'সু চিকে বিচারের মুখোমুখি করা যেতে পারে'

মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চিকে মানবতাবিরোধী অপরাধে বিচারের মুখোমুখি করা যেতে পারে। মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলিমদের জাতিগত নিপীড়নের ঘটনায় তাকে এই বিচারের আওতায় আনা উচিত। জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক বিশেষ দূত ইয়াংহি লি ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম চ্যানেল ফোর'কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এই মন্তব্য করেছেন। গত বুধবার চ্যানেল ফোর নিউজ তাদের ওয়েবসাইটে সাক্ষাৎকারটির ভিডিও প্রকাশ করে।

সাক্ষাৎকারে জাতিসংঘের কর্মকর্তা ইয়াংহি লি বলেন, গত আগস্টে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ‘ক্লিয়ারেন্স অপারেশন’ ঠেকাতে ব্যর্থ হওয়ায় অং সান সু চিকে আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনালের মুখোমুখি করা যেতে পারে। মিয়ানমারে আরো গণকবরের সন্ধান পাওয়ার সম্ভাবনা থাকতে পারে। 

আরো পড়ুন: এবার ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্লেবয় মডেলের!

তিনি বলেন, 'মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ‘ক্লিয়ারেন্স অপারেশন'-এ সাড়ে ছয় লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে গেছে। গণহত্যার সব উপাদানই ছিল সেনাবাহিনীর ওই অভিযানে।

লি বলেন, 'আমি মনে করি, সু চি গণহত্যার বিষয়ে অস্বীকার করছেন কিংবা মূল বিষয় থেকে অনেক দূরে রয়েছেন। গণহত্যায় স্টেট কাউন্সিলর দোষী সাব্যস্ত হবেন না, তা হতে পারে না।'

আরো পড়ুন: ইরানে সু চির ১৫ বছরের জেল!

তিনি বলেন, 'আমি বিশ্বাস করি, সহযোগিতা বা অভিযান থামাতে অনীহার কারণে দোষী সাব্যস্ত হতে পারেন সু চি।'

উল্লেখ্য, সম্প্রতি রাখাইন রাজ্যে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে  ইরানে এক প্রতীকী বিচারে মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চিকে সাজা দেওয়া হয়। ওই বিচারে তাকে ১৫ বছরের সাজা দেওয়া হয়েছিল।

তথ্যসূত্র: চ্যানেল ফোর নিউজ



মন্তব্য