kalerkantho


মিয়ানমারের সেনাবাহিনী মিথ্যা বলছে: যুক্তরাষ্ট্র

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৫:২৬



মিয়ানমারের সেনাবাহিনী মিথ্যা বলছে: যুক্তরাষ্ট্র

যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত নিক্কি হ্যালি

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে জাতিগত নিধন চালানোর কথা নাকচ করে দিয়ে দেশটির সেনাবাহিনী মিথ্যা বলছে। নৃশংসতার সাক্ষ্য বহনকারী কোনো ব্যক্তি বা সংগঠনকে তারা রাখাইনে ঢুকতে দিচ্ছে না। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদও সেখানে যেতে পারছে না। মঙ্গলবার নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সদর দফতরে নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত নিক্কি হ্যালি এসব কথা বলেছেন। 

মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর জাতিগত নির্মূল অভিযান চালানোর অভিযোগ অস্বীকার করাকে ‘হাস্যকর’ বলে মন্তব্য করেছে যুক্তরাষ্ট্র। নিপীড়িত রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ায় নিরাপত্তা পরিষদের ওই বৈঠকে বাংলাদেশের প্রশংসা করা হয় বলে জানা গেছে।

আরো পড়ুন: যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনে হুমকি মস্কো!

রোহিঙ্গাদের ওপর বিভৎস হত্যাযজ্ঞের কথা স্বীকার করতে অং সান সু চির ওপর চাপ প্রয়োগের পাশাপাশি মিয়ানমারের সেনাবাহিনীকে জবাবদিহির আওতায় আনতে নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি আহবান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

এদিকে, রোহিঙ্গা গণহত্যার প্রতিবেদন তৈরি করতে গিয়ে আটক সংবাদসংস্থা রয়টার্সের দুই সাংবাদিকের মুক্তির দাবি জানান নিক্কি হ্যালি।

আরো পড়ুন: যুক্তরাষ্ট্রে হামলা: পুলিশ কমান্ডার নিহত

তিনি বলেন, 'আমরা অনতিবিলম্বে তাদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি। মিয়ানমারের শীর্ষ কর্মকর্তাদের মধ্যে গণমাধ্যমকে দোষারোপ করার প্রবণতা আছে।'

ফরাসি রাষ্ট্রদূত ফ্রাঙ্কোইস ডেলাটরে বলেন, 'রয়টার্সের খবরে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার যে খবর দেখেছি, তা মানবতাবিরোধী অপরাধ।

আরো পড়ুন: ইসরাইলের অবরোধ: এক বছরে ৫৪ ফিলিস্তিনির মৃত্যু

প্রসঙ্গত, চীন ও রাশিয়ার ভেটো'র কারণে মিয়ানমারকে চাপে রাখতে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সব উদ্যোগ ব্যর্থ হয়ে যাচ্ছে। ভেটো ক্ষমতার ওই দুই বিশ্ব শক্তি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, রাখাইন রাজ্যের পরিস্থিতি স্থিতিশীল ও নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।


তথ্যসূত্র: রয়টার্স



মন্তব্য