kalerkantho


মালদ্বীপের বন্ধু দেশের তালিকায় নেই ভারত

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৭:৪৭



মালদ্বীপের বন্ধু দেশের তালিকায় নেই ভারত

মালদ্বীপের বর্তমান রাষ্ট্রপতি আবদুল্লা ইয়ামিন দেশটির বন্ধু দেশের সংজ্ঞা বদলে ফেলেছেন। ভারতকে ছেড়ে এখন চীনের সঙ্গে দোস্তি করেছে মলদ্বীপ। যা নিয়ে সরকার বিরোধীরা ক্রমাগত ক্ষোভপ্রকাশ করে চলেছে। ছোট দ্বীপ রাষ্ট্রটি সঙ্কটের মুহূর্তে বন্ধু দেশগুলির কাছে দূত পাঠানোর কথা ভেবেছে। এবং সবচেয়ে আশ্চর্যের সেই তালিকায় নেই ভারতের নাম।

মালদ্বীপ দূত পাঠাবে চীন, পাকিস্তান ও সৌদি আরবের কাছে। এই তিন দেশের কাছে গিয়ে দেশের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে হাল-হকিকত জানাবেন মালদ্বীপের সরকারি দূতেরা।

আরও পড়ুন: মালদ্বীপের দিকে এগোনোর দরকার নেই, ভারতকে হুঁশিয়ারি চীনের

মালদ্বীপের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ নাশিদ দুদিন আগেই এই সঙ্কটের মুহূর্তে ভারতের কাছে সাহায্য চেয়ে আবেদন করেন। এক্ষেত্রে চীনকে সরিয়ে তিনি ভারতরে প্রাধান্য দেন ও জানিয়ে দেন এই সমস্যা একমাত্র ভারতই সমাধান করতে পারবে। সেই প্রেক্ষিতেই চীন জানিয়ে দেয়, মালদ্বীপে হস্তক্ষেপ করলে তা ভালো হবে না। অর্থাৎ ভারত এই বিষয়ে নাক গলাক তা চায়না চীন।

আবদুল্লা ইয়ামিনের সরকার ভারতের দিক থেকে চীন ও সৌদি আরবের দিকে ঝুঁকেছে। এই দুটি দেশই ছোট্ট দ্বীপ রাষ্ট্রে বড় বিনিয়োগ করেছে। চীনের সঙ্গে রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক সম্পর্ক মজবুত করেছে ইয়ামিনের সরকার। আর তাই বন্ধু দেশের তালিকা থেকে ভারতের নাম বাদ গিয়েছে।

আরও পড়ুন: রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তির রায় বাতিল করল মালদ্বীপের সুপ্রিম কোর্ট

ঘটনা হল, কয়েকদিন ধরে মালদ্বীপে রাজনৈতিক সঙ্কট চলছে। সেনাবাহিনীর হাতে চলে গিয়েছে ক্ষমতা। প্রেসিডেন্ট আবদুল্লা ইয়ামিন সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে দেশে জরুরি অবস্থা জারি করেছেন। সুপ্রিম কোর্ট নির্বাসিত প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদের বিরুদ্ধে করা সন্ত্রাসবাদের মামলা প্রত্যাহার সহ বিরোধী নেতাদের মুক্তির নির্দেশ দিয়েছিল। তার বিরোধিতায় শুধু জরুরি অবস্থা জারিই নয়, সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতিকেও গ্রেপ্তার করিয়েছেন আবদুল্লা ইয়ামিন। সেই পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে মালদ্বীপ একসময়ের বন্ধু ভারতকে ভুলে গিয়ে চীনের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে।

আরও পড়ুন: ভারতের সহায়তা চাইলেন মালদ্বীপের সাবেক প্রেসিডেন্ট নাশিদ



মন্তব্য