kalerkantho


যুক্তরাষ্ট্রে সরকারি কাজ বন্ধ নিয়ে সিনেটে ভোটাভুটি

সাবেদ সাথী, নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি   

২২ জানুয়ারি, ২০১৮ ২২:০৫



যুক্তরাষ্ট্রে সরকারি কাজ বন্ধ নিয়ে সিনেটে ভোটাভুটি

ছবি : ‌ইন্টারনেট থেকে

রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাট সিনেটরদের পরস্পরকে দোষারোপের মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের চলমান ‘কাজ বন্ধ ’ বা (শাটডাউন) এর দ্বিতীয় দিনে নতুন একটি বিলের উপর ভোট অনুষ্ঠিত হচ্ছে। স্থানীয় সময় আজ সোমবার ছয়টায় ওই ভোটাভুটি হতে পারে বলে জানিয়েছেন রিপাবলিকান সিনেটর মিচ ম্যাককনেল। অচলাবস্থা নিরসনে সাধারণ সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটাভুটির প্রস্তাব দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সাপ্তাহিক ছুটির পর প্রথম কর্মদিবস হওয়ায় এদিন যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে শাটডাউনের প্রভাব দৃশ্যমান হতে পারে বলেস ধারণা করা হচ্ছে।                                                                       

১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাজেট বাড়ানো সংক্রান্ত একটি বিলে গত শুক্রবার মধ্যরাতে অনুষ্ঠিত ভোটাভুটিতে সিনেটররা একমত হতে না পারায় শনিবার স্থগিত হয়ে যায় যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি কার্যক্রম। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের বিশ্লেষণ থেকে জানা যাচ্ছে, অভিবাসন-নীতিতে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের প্রস্তাবিত পরিবর্তনকে কেন্দ্র করেই বাজেট নিয়ে সিনেটররা ভাগ হয়ে যান। যুক্তরাষ্ট্রে অবৈধ তরুণ অভিবাসীদের সামাজিক সুরক্ষায় ওবামা ঘোষিত ‘ড্রিমার কর্মসূচি’ পরিচালনায় অর্থ বরাদ্দ নিয়ে দুই ভাগে ভাগ হয় সিনেট। 

ওই কর্মসূচির আওতায় যে সাত লাখ তরুণ-তরুণী সাময়িকভাবে যুক্তরাষ্ট্রে থাকার অনুমতি পেয়েছে, তাদের ব্যাপারে কোনও স্থায়ী সমাধানকে সমঝোতার শর্ত হিসেবে তুলে ধরে ডেমোক্র্যাটরা। অন্যদিকে রিপাবলিকান প্রতিনিধিরা পুরো বিষয়টিকে সাময়িক সমাধান হিসেবে দেখতেই আগ্রহী। এ নিয়ে রিপাবলিকানদের সঙ্গে মতবিরোধ হওয়ায় শেষপর্যন্ত বাজেটের সমঝোতা প্রস্তাব পাশের জন্য প্রয়োজনীয় ন্যূনতম ৬০ ভোটও মেলেনি। কংগ্রেসে সংখ্যাগরিষ্ঠ রিপাবলিকান সিনেটরদের ভোটের সংখ্যা ৫১টি।  

মার্কিন অর্থবছর শুরু হয় ১ অক্টোবর। তার আগেই বাজেট অনুমোদন করিয়ে নেওয়ার বাধ্যবাধকতা থাকলেও প্রায়ই কংগ্রেস তা পাস করতে ব্যর্থ হয়। সেকারণে গত বছরের অর্থ বরাদ্দ চালু রাখতে ফেডারেল এজেন্সিগুলোকে অস্থায়ীভাবে তহবিল যোগান দিতে হয়। এবারে সেই যোগান দেওয়ার বিষয়েই সম্মত হতে না পারায় শনিবার থেকে বন্ধ হয়ে গেছে মার্কিন সরকারের বিভিন্ন বিভাগ।

একারণে সোমবারও ঘরে থাকবে আবাসন, পরিবেশ, শিক্ষা ও বাণিজ্য বিভাগের বেশিরভাগ কর্মী। রাজস্ব, স্বাস্থ্য, প্রতিরক্ষা আর পরিবহন বিভাগের অর্ধেক কর্মীও কাজে যোগ দেবেন না। তবে জরুরি জীবন রক্ষা ও সম্পদ সুরক্ষা বিষয়ক বিভাগগুলো সচল থাকবে।

সর্বশেষ ২০১৩ সালে টানা ১৬ দিন চলেছিলো মার্কিন এই শাটডাউন। সে সময় ন্যাশনাল পার্ক বন্ধ করে দেওয়া হলে তা নিয়ে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া হয়। তবে এবারে ট্রাম্প প্রশাসন তা চালু রাখার উপায় খুঁজছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইটারে ‘নিউক্লিয়ার অপশন’ বেছে নেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন। মার্কিন কংগ্রেসের নিয়ম অনুসারে নির্দিষ্ট বিষয়ের বিতর্কের শেষ টানতে সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা পয়েন্ট অব অর্ডারে এই প্রস্তাব তুললে তা মেনে নেওয়া হয়ে থাকে। মার্কিন কংগ্রেসে এখন পর্যন্ত দুইবার ২০১৩ ও ২০১৭ সালে এই ভোটাভুটি হয়েছে। সেই দুইবারই রিপাবলকিান আর ডেমোক্র্যাটদের মধ্যে সমঝোতা থাকায় তা কোনও চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েনি।

সমস্যার একটি গ্রহণযোগ্য সমাধানের জন্য ফেব্রুয়ারির ৮ তারিখ পর্যন্ত ফেডারেল সরকারের তহবিল যোগান দিতে নতুন করে আরও একটি ভোটাভুটি সোমবার অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। আর এদিনই সাপ্তাহিক ছুটি শেষে খোলার কথা মার্কিন সরকারের বেশিরভাগ দফতর।



মন্তব্য