kalerkantho


অগ্নিদগ্ধ অবস্থাতেই থানায় গিয়ে স্ত্রীর অভিযোগ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৫:১৪



অগ্নিদগ্ধ অবস্থাতেই থানায় গিয়ে স্ত্রীর অভিযোগ

অগ্নিদগ্ধ অবস্থাতেই থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করে ওই গৃহবধূ। গায়ে আগুন দিয়ে গৃহবধূকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টার অভিযোগ উঠল শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে। অভিযোগের ভিত্তিতে স্বামী ও শ্বশুর-শাশুড়িকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। ঘটনাটি উত্তর ২৪ পরগনার মধ্যমগ্রামের। অভিযোগ জানা গেছে, পণের টাকা দিতে না পারার জন্য গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন। বৃহস্পতিবার সোমাকে বাথরুমে নিয়ে গিয়ে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।  জ্বলন্ত অবস্থাতেই বাড়ির বাইরে বেরিয়ে আসেন ওই গৃহবধূ। তাঁর চিত্কারে ছুটে আসে প্রতিবেশীরা। তাঁরাই আগুন নেভান।


আরো পড়ুন: একের পর এক বিয়ে করাই পেশা ইয়াসমিনের


মধ্যগ্রামের বাবুপাড়ার বাসিন্দা সোমা সিকদারের অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই তাঁর উপর টাকার জন্য চাপ দিত শ্বশুরবাড়ির লোকজন। নিত্যনতুন আবদার লেগেই থাকত। সম্প্রতি একটি সোনার চেনের দাবি করা হয়। তিনি তা দিতে অস্বীকার করেন। এরপরই বাড়ে অত্যাচারের মাত্রা।


আরো পড়ুন: শ্বশুরবাড়িতে অগ্নিদগ্ধ সোনিয়া চলেই গেলেন


এরপর অগ্নিদগ্ধ অবস্থাতেই মধ্যমগ্রাম থানায় গিয়ে স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির লোকজনদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন গৃহবধূ সোমা সিকদার। অভিযুক্ত স্বামী সঞ্জয় সিকদার এবং শ্বশুর-শাশুড়িকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। গুরুতর জখম অবস্থায় বর্তমানে বারাসত হাসপাতালে চিকিত্‍সাধীন ওই গৃহবধূ।

 



মন্তব্য