kalerkantho


চার বছরের শিশুকে ধর্ষণের পর গলা কেটে হত্যা!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৫:১৯



চার বছরের শিশুকে ধর্ষণের পর গলা কেটে হত্যা!

পাকিস্তানের মারদান জেলার গুজার গারহি এলাকায় চার বছরের এক মেয়েকে ধর্ষণের পর গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। গত রোববার আসমা নামের ওই মেয়ের মরদেহ গুজার গারহি এলাকার আখক্ষেত থেকে উদ্ধার করা হয়।

মারদান জেলার মেয়র হামিয়াতুল্লাহ এ ব্যাপারে বুধবার কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরাকে জানান, আসমার সুরতহাল প্রতিবেদন আমি দেখেছি। আমি নিশ্চিত যে হত্যার আগে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, আসমা একেবারেই দরিদ্র পরিবারের মেয়ে। তার বাবা সৌদি আরবে শ্রমিক হিসেবে কাজ করে। বাড়ির বাইরে খেলার সময় তাকে অপহরণ করা হয়েছিল। অপহরণের একদিন পর তার মরদেহ পাওয়া গেছে।

চিকিৎসকরাও বলছেন, হত্যার আগে আসমাকে ধর্ষণ করা হয়েছে। অভিযুক্তকে খুঁজে পেতে ইতোমধ্যেই তদন্তে নেমেছে দেশটির পুলিশ।

মারদান জেলা পুলিশের একজন কর্মকর্তা মিয়া সাইয়ীদ জানান, ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন অনুযায়ী জানা গেছে, ওই শিশু সহিংসতার শিকার হয়েছে। তবে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন হাতে না পাওয়া পর্যন্ত নিশ্চিত হয়ে কিছুই বলা যাচ্ছে না।

আরো পড়ুন : আচরণ বদলাতে পাকিস্তানের ওপর চাপ বাড়াবে জাতিসংঘ

আসমা এমন এক সময় খুন হলেন, যখন সাত বছর বয়সী জয়নব আনসারীকে ধর্ষণ এবং হত্যার ব্যাপারে সারাদেশে আলোড়ন তৈরি হয়েছে। গত সপ্তাহে কাসুরের একটি ময়লার ভাগাড় থেকে জয়নাবের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। চলতি বছরের ৪ জানুয়ারি নিখোঁজ হয় সে।

জয়নব হত্যার বিচারের দাবিতে সহিংস হয়ে ওঠে কাসুর। অন্তত দু'জন নিহত এবং বেশ কয়েকজন আহত হওয়ার ঘটনাও ঘটেছে সেখানে।

সূত্র : আলজাজিরা



মন্তব্য