kalerkantho


ট্রাম্প টাওয়ারের অগ্নিকাণ্ডে সন্ত্রাসী ঘটনার সম্পৃক্ততা নেই

সাবেদ সাথী, নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি   

৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ০৪:২৩



ট্রাম্প টাওয়ারের অগ্নিকাণ্ডে সন্ত্রাসী ঘটনার সম্পৃক্ততা নেই

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যানহাটনে অবস্থিত ট্রাম্প টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের সঙ্গে কোন সন্ত্রাসী ঘটনার সম্পৃক্ততা ছিল না। স্থানীয় সময় গতকাল সোমবার সকালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মালিকানাধীন ভবনটির ছাদে হঠাৎ করেই আগুন লাগে। অন্য কোনো ঘটনা নয়, বৈদ্যুতিক শট সার্কিট থেকে অগ্নিকাণ্ড ঘটেছিল বলে ট্রাম্পের ছেলে এরিক ট্রাম্প গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন। এ ঘটনায় একজন গুরুতর আহত হলেও কারো প্রাণহানির খবর পাওয়া যায়নি। অগ্নিকাণ্ডের সময় ট্রাম্প ভবনটিতে ছিলেন না। এ সময় তিনি ওয়াশিংটনে ছিলেন।

মার্কিন টেলিভিশনগুলো জানায়, সোমবার স্থানীয় সময় সকাল ৭টার আগে আগে ৬৮ তলা ওই ভবনের ছাদ থেকে ধোঁয়া উড়তে দেখা যায়। পরে নিউ ইয়র্ক ফায়ার সার্ভিস জানায়, পরিস্থিতি তাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এ ঘটনায় অন্তত দুইজন আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা গুরুতর।

২০১৬ সালের গোড়ার দিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নিয়ে হোয়াইট হাউসে ডোনাল্ড ট্রাম্প ৫৮ তলা ভবনটির সবচেয়ে ওপরের তিনটি তলায় তার পরিবার নিয়ে বাস করতেন। কিন্তু গত বছরের জানুয়ারিতে প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিদ মার্কিন প্রেসিডেন্টের কার্যালয় ও বাসভবন হোয়াইট হাউসে চলে যান। ভবনটিতে ট্রাম্পের দু্ই ছেলে এরিক ও ডোনাল্ড জুনিয়রের অফিসও আছে। মেয়ে ইভানকার ফ্যাশন কম্পানির সদর দপ্তরও ওই ভবনে।

কয়েকদিন আগে ম্যানহাটনের ৪০ মাইল উত্তরে চাপ্পাকুয়াতে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন ও হিলারি ক্লিনটনের বাড়িতেও আগুন লেগেছিল। বাথরুমের ফ্যান শর্টসার্কিট হয়ে ওই আগুনের ঘটনা ঘটে।

ভবনটিতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ট্রাম্পের তাৎক্ষণিক কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তবে তার ছেলে এরিক ট্রাম্প এক টুইটে বলেছেন, এটি ছিল ভবনের ছাদে কুলিং টাওয়ারে বৈদ্যুতিক গোলযোগ থেকে সৃষ্ট ‘ছোটখাটো অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা’। তবে নিউ ইয়র্ক ফায়ার সার্ভিস যেভাবে কয়েক মিনিটের মধ্যে সাড়া দিয়েছে সেজন্য তাদের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন তিনি।



মন্তব্য