kalerkantho


পাকিস্তানে মার্কিন নিরাপত্তা সহায়তা বন্ধের ঘোষণা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৫ জানুয়ারি, ২০১৮ ০৯:১৮



পাকিস্তানে মার্কিন নিরাপত্তা সহায়তা বন্ধের ঘোষণা

এবার পাকিস্তানে মার্কিন নিরাপত্তা সহায়তা বন্ধের ঘোষণা করল যুক্তরাষ্ট্র। এ নিয়ে দুই দেশের কয়েকদিনের বাকবিতণ্ডার পর স্টেট ডিপার্টমেন্টের পক্ষ থেকে সহায়তা বন্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

পাকিস্তানে তৎপর জঙ্গি গোষ্ঠী আফগান তালেবান এবং হাক্কানী মিশনের তৎপরতা বন্ধে দেশটির ব্যর্থতার ফলেই এমন সিদ্ধান্ত বলে জানানো হয়। 

এ ব্যাপারে আভাস মিলেছিল এ বছরের একেবারের প্রথম দিনেই, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একটি টুইট বার্তায়। এবার আসল আনুষ্ঠানিক ঘোষণা। নিজ দেশে জঙ্গি তৎপরতা বন্ধে ব্যর্থ হওয়ায় এবার প্রায় সব ধরনের মার্কিন নিরাপত্তা সহায়তা বন্ধ করা হলো।

এ প্রসঙ্গে স্টেট ডিপার্টমেন্টের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, জঙ্গি গ্রুপ হাক্কানী নেটওয়ার্ক এবং আফগান তালেবান গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে পাকিস্তানের ব্যবস্থা না নেওয়া পর্যন্ত এই নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে।

স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র হিদার নুরেট সংবাদ মাধ্যমকে এ বিষয়টির ব্যাখ্যা দেন। 

মুখপাত্র নুরেট বলেছেন, "আজ নিশ্চিত করে বলতে চাই যে আমরা পাকিস্তানের জাতীয় নিরাপত্তা, দুঃখিত-নিরাপত্তা সহায়তা বন্ধ করছি।"

তিনি আরো বলেন, "যতদিন পর্যন্ত না দেশটির সরকার তাদের দেশে তৎপর আফগান তালেবান গোষ্ঠী ও হাক্কানী গ্রুপের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা না নেবে। তারা এই অঞ্চলটিকে অস্থিতিশীল করছে এবং মার্কিন নাগরিকদের টার্গেট করে আসছে। এ জন্যেই পাকিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রে নিরাপত্তা সহায়তা বন্ধ রাখা হবে।"

যুক্তরাষ্ট্রের এমন সিদ্ধান্তে মিত্র হিসেবে পরিচিত পাকিস্তানের সাথে সম্পর্কের ক্ষেত্রে একটি বড় আঘাত। তবে আফগানিস্তান এবং ভারত প্রশংসা করেছে যুক্তরাষ্ট্রের এমন পদক্ষেপের। কেবল মাত্র চীন এ বিষয়ে পাকিস্তানের পক্ষে রয়েছে।

এর আগে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে প্রতারণার আশ্রয়, জঙ্গি দমনে ব্যর্থতা ও তালেবানদের আশ্রয় দেবার অভিযোগে সাহায্য বন্ধ করে দেবার হুমকি দিয়ে টুইট করেছিলেন মিস্টার ট্রাম্প।

সেখানে তিনি লিখেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্র ১৫ বছর ধরে বোকার মতো পাকিস্তানে ৩৩ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি অর্থ সাহায্য দিয়ে এসেছে। যার বিনিময়ে তারা কিছুই পায়নি।



মন্তব্য