kalerkantho


সম্মান রক্ষায় বোন-ভগ্নিপতিকে খুন!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১১:৩৫



সম্মান রক্ষায় বোন-ভগ্নিপতিকে খুন!

পরিবারের অমতে বিয়ে করায় নিজের বোন ও ভগ্নিপতিকে খুন করেছে এক পাকিস্তানি যুবক। দেশটিতে পরিবারের সম্মান রক্ষায় এমন খুনের ঘটনাকে আখ্যা দেওয়া হয়েছে 'অনার কিলিং' নামে। সেখানে প্রায়ই ঘটে থাকে এমন ঘটনা। জানা যায়, ১৯ বছর বয়সী ওই খুনির নাম সাইদ আনোয়ার। কাইসার নামক ২৫ বছর বয়সী যুবককে বিয়ে করায় ছোট বোন মিসমাত মুসাররাত (১৮)-এর ওপর তিনি ক্ষুব্ধ ছিলেন। সোমবার পাকিস্তানের রাওয়ালপিন্ডির নাগয়ালে ঘটেছে এমন ঘটনা।


আরো পড়ুন :

মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে ভারতীয় তরুণীকে বিয়ে করল পাকিস্তানি যুবক ...

পুলিশ কর্মকর্তা ইসতিয়াক মাসুদ চিমা জানান, কয়েক মাস আগে পরিবারের অমতে বিয়ে করার পরই বোন-ভগ্নিপতিকে খুন করার জন্য সুযোগ খুঁজছিল সাইদ। তিনি জানান, এদিন ওই দম্পতিকে বাড়িতে একা পেয়ে তাদের ওপর গুলি চালায় সাইদ। ফলে ঘটনাস্থলেই মারা যায় তারা। খুনের পর পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে সে। কিন্তু পরবর্তীতে পুলিশ তাকে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করে। তার বিরুদ্ধে জোড়া খুনের মামলা করা হয়েছে। বুধবার তাকে কোর্টে তুলে রিমান্ডের আবেদন করা হবে। নিহতদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য স্থানীয় হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।


আরো পড়ুন :

যেভাবে পাকিস্তানি স্ত্রীকে ফেরত পেলেন ভারতীয় যুবক


উল্লেখ্য, গত মাসেও পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশে পরিবারের অমতে বিয়ে করায় গ্রাম্য সালিশের মাধ্যমে হত্যা করা হয় এক নবদম্পতিকে। গত সেপ্টেম্বর মাসে প্রেমের দায়ে করাচিতে ১৫ বছর বয়সী এক কিশোরী এবং ১৭ বছর বয়সী এক কিশোরকে হত্যা করে তাদের পরিবার। মানবাধিকার কর্মীরা জানান, পাকিস্তান জুড়ে তথাকথিত অনার কিলিং এর শিকার হন বহু মানুষ। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে নারীরাই হন মূল শিকার। নিজ পরিবারের লোক অথবা গ্রাম্য সালিসে তাদেরকে হত্যা করা হয়।

 



মন্তব্য