kalerkantho


ট্রাম্পের যৌন হয়রানির তদন্ত চান তিন নারী!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১১:২৫



ট্রাম্পের যৌন হয়রানির তদন্ত চান তিন নারী!

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যে তিন নারী যৌন হয়রানির অভিযোগ এনেছিলেন, তারা এবার তার বিরুদ্ধে কংগ্রেশনাল তদন্ত দাবি করেছেন। নিউ ইয়র্ক শহরে এক সংবাদ সম্মেলনে এই তিন নারী অভিযোগ করেন, ট্রাম্প তাদের অশালীনভাবে স্পর্শ করেছেন, জড়িয়ে ধরেছেন, জোর করে চুমু দিয়েছেন এবং তাদের অবমাননা বা হেনস্তা করেছেন। অভিযোগকারী তিন নারী জেসিকা লিডস, সামান্থা হোলভি ও র‌্যাচেল ক্রুক সংবাদ সম্মেলনে তার অভিযোগ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন, যার কিছু অংশ টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। তবে হোয়াইট হাউস দাবি করেছে, এই তিন নারী মিথ্যা অভিযোগ উত্থাপন করেছেন। সোমবার সকালে তিন নারীকে নিয়ে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে ব্রেভ নিউ ফিল্মস নামে একটি সামাজিক সংগঠন।


আরো পড়ুন :

ট্রাম্পের যৌন হয়রানির শিকার নারীদের


গত মাসে সিক্সটিন উইমেন অ্যান্ড ডোনাল্ড ট্রাম্প নামে একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রকাশ করে সংগঠনটি, যেখানে নারীদের অভিযোগ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করা হয়। গত বছর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের এক মাস আগে লিডস, হোভলি ও ব্রুক আলাদা আলাদাভাবে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ নিয়ে প্রকাশ্যে আসেন। চলতি বছরের অক্টোবর মাসে হলিউডের প্রযোজক হার্ভে ওয়েনস্টেইনের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ সামনে আসার পর ট্রাম্পের বিরুদ্ধে তাদের অভিযোগ নতুন মাত্রা পায়। হার্ভের বিরুদ্ধে অভিযোগের পর যুক্তরাষ্ট্রে উচ্চপর্যায়ে সরকারি-বেসরকারি কর্তাদের বিরুদ্ধে একের পর এক যৌন হেনস্তার তথ্য আসতে থাকে। সম্প্রতি এক জরিপে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রাপ্তবয়স্ক নারীদের মধ্যে ৬০ শতাংশই যৌন হয়রানির শিকার।


আরো পড়ুন :

ট্রাম্পের যৌন হয়রানির আরো অভিযোগ


সোমবার এনবিসি নিউজকে হোলভি বলেন, ২০০৬ সালে মিস ইউএসএ সুন্দরী প্রতিযোগিতায় ট্রাম্প তাকে ও অন্য প্রতিযোগীদের সঙ্গে অশালীনতা করেছিলেন। ওই প্রতিযোগিতার আয়োজক ছিলেন ট্রাম্প নিজেই। ওই সময় প্রাক্তন মিস নর্থ ক্যারোলাইন হোলভির বয়স ছিল ২০ বছর। তিনি বলেছেন, প্রতিযোগিতার সময় ট্রাম্প আমাদের সবাইকে সারিবদ্ধভাবে দাঁড় করিয়েছিলেন এবং আমার দিকে এমনভাবে তাকাচ্ছিলেন, যেন আমি একটি মাংসপিণ্ড। এনবিসিরি সঞ্চালক মেগিন কেলিকে তিনি বলেন, ওই সময় নিজের কাছে আমাকে খুব স্থূল মনে হচ্ছি।

পরে সাংবাদিকদের হোলভি বলেন, তারা অন্য কংগ্রেস সদস্যদের বিরুদ্ধে তদন্ত করেছেন। সুতরাং আমি মনে করি, এটিই ন্যায্য হবে যে, তার (ট্রাম্প) বিরুদ্ধেও একইভাবে তদন্ত করা হোক। তিনি আরো বলেন, এটি পক্ষপাতিত্বের ইস্যু নয়, এটি হলো- নারীরা প্রতিদিন কী ধরনের আচরণের শিকার হচ্ছে, তাই। লিডসের বয়স এখন ৭০-এর কোটায়। তিনি তার অভিযোগে বলেন, যখন তার বয়স ৩৮ বছর, সেই সময় নিউ ইয়র্কগামী একটি ফ্লাইটে ট্রাম্পের পাশের আসনে বসেছিলেন এবং ট্রাম্প তাকে যৌন হেনস্তা করেছিলেন। লিডস বলেন, তিনি আমার ওপর পুরো ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। লিডস বলেছেন, এই অভিযোগ সামনে এনেছেন এই কারণে যে, আমি লোকজনকে জানাতে চাই, ট্রাম্প আসলে কী ধরনের মানুষ এবং কী ধরনের বিকৃত লোক।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগে ক্রুক বলেন, তখন তার বয়স ছিল ২২ বছর। ট্রাম্প টাওয়ারে একটি রিয়েল স্টেট কোম্পানির অভ্যর্থনাকারী হিসেবে চাকরি করতেন। সেই সময় একদিন লিফটের বাইরে ট্রাম্প তাকে জোর করে চুমু দিয়েছিলেন। তিনি বলেন, আমি মর্মাহত ও বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছিলাম। সোমবার তিন নারীর সংবাদ সম্মেলনের পর হোয়াইট হাউস প্রক্রিয়ায় জানিয়েছে, এসব মিথ্যা অভিযোগ প্রত্যক্ষদর্শীদের বয়ানের ভিত্তিতে অধিকাংশ ক্ষেত্রে ভিত্তিহীন। গত বছর নির্বাচনী ক্যাম্পেইনে দীর্ঘসময় ধরে এ নিয়ে কথা হয়েছে এবং বিজয় উপহার দিয়ে আমেরিকার জনগণ এর বিচার করেছে। হোয়াইট হাউস দাবি করেছে, এ ধরনের মিথ্যা অভিযোগ আবারো সামনে আনার অর্থ এর পেছনে সুনির্দিষ্ট রাজনৈতিক উদ্দেশ্য আছে।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প গত বছর তার বিরুদ্ধে তোলা যৌন হেনস্তার সব অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেন এবং অভিযোগকারীদের বিরুদ্ধে মামলা করার হুমকি দেন। যদিও এখন পর্যন্ত তাদের কারো বিরুদ্ধে কোনো মামলা করেননি তিনি। কিন্তু সম্প্রতি জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ও ট্রাম্পের আস্থাভাজন নিকি হ্যালি বলেছেন, অভিযোগকারীদের কথাও শোনা উচিত। সিবিএস নিউজকে বলেন, যেসব নারী এগিয়ে এসেছেন, তাদের নিয়ে তিনি যারপরণায়ই খুশি। এদিকে, মার্কিন সিনেটের তিনজন ডেমোক্র্যাট সিনেটর- নিউ জার্সির করি বুকার, অরেগনের জেফ মের্কলে ও নিউ ইয়র্কের ক্রিস্টিন গিলিব্র্যান্ড যৌন হয়রানির অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ট্রাম্পের পদত্যাগ দাবি করেছেন।


মন্তব্য