kalerkantho


তিব্বতের স্বাধীনতা ইস্যুতে চূড়ান্ত ‘ইউ টার্ন’ দালাই লামার!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ নভেম্বর, ২০১৭ ২০:১৮



তিব্বতের স্বাধীনতা ইস্যুতে চূড়ান্ত ‘ইউ টার্ন’ দালাই লামার!

তিব্বতের স্বাধীনতার ইস্যুতে ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে গিয়ে কার্যত চীনের সমর্থনেই সুর বাঁধলেন সেখানকার বৌদ্ধ ধর্মগুরু দালাই লামা। ভারতের কলকাতায় আয়োজিত চেম্বার অব কমার্সের এক সভায় এই তিব্বতি ধর্মগুরু জানিয়েছেন, চীনের কাছ থেকে স্বাধীন হতে চায় না তিব্বত, বরং উন্নয়ন চায়।

দালাই লামা জানিয়েছেন, ‘যা ঘটে গিয়েছে তা পুরোনো, আমাদের ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে চলতে হবে। ’ তিব্বতীরা চীনের সঙ্গে থাকতে চান বলেই এদিন নিজের বক্তব্যে তিনি জোর দেন। একধাপ এগিয়ে দালাই লামা জানান, ‘আমরা স্বাধীনতা চাই না ... আমরা চীনের সঙ্গে থাকতে চাই। আমরা আরও উন্নয়ন চাই। ’

এখানেই শেষ নয়, দালাই লামা জানিয়েছেন ‘তিব্বতের আলাদা সংস্কৃতি...চীনের মানুষ নিজেদের দেশকে ভালোবাসে। আমরা আমাদের নিজের দেশকে ভালোবাসি। ’

তাঁর প্রতি চীনের যাবতীয় কটূক্তি তথা তিব্বত থেকে পালিয়ে তাঁর ভারতে এসে আশ্রয় নেওয়ার ঘটনাকে পেছনে রেখেই তিনি বলেন, ‘বিশ্বের সঙ্গে জুড়ে গিয়ে চীন ৪০ থেকে ৫০ শতাংশ বদলে গিয়েছে। ’ এছাড়াও তিনি ইন্দো-চীন সম্পর্ক সুদৃঢ় করার বিষয়ে আশা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন ভারতের দরকার চীনকে, চীনেরও দরকার ভারতকে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, তিব্বতের স্বাধীনতার লড়াইতে যাঁকে মূলস্তম্ভ মানা হয়, সেই দালাই লামা চীনের সেনার হামলা এড়িয়ে ১৯৫৯ সালে ভারতে চলে আসেন তিব্বত থেকে। চীনের তুমুল হুঙ্কার হুমকি সত্ত্বেও যাবতীয় নিরাপত্তা দিয়ে দালাই লামাকে সেই সময় থেকে আশ্রয় দিয়েছে ভারত। এ যাবৎকাল দালাই লামা ইস্যুতে ভারতকে কূটনৈতিকভাবে কটাক্ষও করেছে চীন। কিছুদিন আগে দালাই লামার উত্তরপূর্বের রাজ্যগুলিতে সফর নিয়েও দিল্লিকে হুমকির সুর শুনিয়েছে বেইজিং। কিন্তু এত ঘটনার পর, তাঁর ভারতে আশ্রয় নেওয়ার এতদিন বাদে দালাই লামার এই ধরনের ইউটার্ন-এর নেপথ্যের কারণ খোঁজার চেষ্টা করছেন রাজনীতি বিশেশজ্ঞরা।


মন্তব্য