kalerkantho


কিশোরকে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে গৃহবধূ গ্রেপ্তার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ নভেম্বর, ২০১৭ ০২:০৩



কিশোরকে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে গৃহবধূ গ্রেপ্তার

প্রতীকী ছবি

১৭ বছরের এক কিশোরকে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ভারতের কর্নাটকের কোলার স্বর্ণখনি এলাকার বাসিন্দা জনৈক গৃহবধূকে। প্রটেকশন অফ চিলড্রেন ফর সেক্সুয়াল অফেন্সেস বা পকসো আইনে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাঁকে।

পুলিশ জানিয়েছে, ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে।

বেঙ্গালুরু থেকে ৯৫ কিলোমিটার দূরে কোলার স্বর্ণখনি। দুই বছর আগে বিয়ে হয় ওই নারীর, স্বামীর পানীয় জল সরবরাহের ব্যবসা রয়েছে। উল্টোদিকে ওই কিশোর স্কুল ড্রপআউট, নারীর সঙ্গে আলাপ ছিল তার।

২৪ অক্টোবর ওই কিশোরকে নিয়ে ২৪ বছরের গৃহবধূটি বাড়ি থেকে পালিয়ে যান। সে রাতেই তাঁর স্বামী অভিযোগ করেন স্থানীয় রবার্টসোনপেট থানায়। পরদিন সকালে ছেলেটির বাবাও আসেন থানায় ছেলের নিখোঁজ ডায়েরি করতে। সে সময় নিখোঁজ গৃহবধূর ছবি স্টেশন অফিসারের টেবিলের ওপর ছিল। তা দেখে কিশোরের বাবা জানতে চান, নারীর কী হয়েছে।

তিনিও নিখোঁজ শুনে তিনি তখনই সন্দেহ প্রকাশ করেন, তাহলে ওই নারীই তাঁর ছেলেকে নিয়ে চম্পট দিয়েছেন, কারণ পরস্পরকে চিনতেন তাঁরা।

প্রাথমিকভাবে পুলিশ ভদ্রলোকের কথায় কান না দিলেও প্রতিবেশীরাও বলেন, দুজনের মধ্যে অবৈধ সম্পর্ক ছিল। স্থানীয় বাসস্ট্যান্ডের সিসিটিভি ফুটেজে ধরা পড়ে, একসঙ্গে অন্ধ্র যাওয়ার বাসে উঠেন তাঁরা।

নারীর স্বামীও পুলিশকে জানান, তাঁর স্ত্রী দেড় লাখ টাকা সঙ্গে নিয়ে নিখোঁজ হয়েছেন। নারীর মোবাইল ফোন ট্র্যাক করে তাঁদের ধরার চেষ্টা করে পুলিশ। কিন্তু তাঁরা দুদিন অন্তর ঠিকানা পাল্টাচ্ছিলেন। বিশাখাপত্তনম, বিজয়ওয়াড়া, নেল্লোর, মহাবলীপুরমসহ তামিলনাড়ুর কিছু এলাকা- এমন নানা জায়গায় লজ ভাড়া করতেন তাঁরা। শেষমেষ ১৩ তারিখ তাঁরা ধরা পড়েন তামিলনাড়ুর ভেলানকান্নি এলাকা থেকে।

পুলিশ জানিয়েছে, নারীকে বিশ্বাস করানো যাচ্ছিল না, সঙ্গের কিশোর নাবালক, তার সঙ্গে যৌন সম্পর্কের অর্থ, তাকে ধর্ষণ করেছেন তিনি। তিনি ক্রমাগত বলে যাচ্ছিলেন, তাঁরা পরস্পরকে ভালোবাসেন, শিগগিরই বিয়ে করবেন। সূত্র: ইন্টারনেট


মন্তব্য