kalerkantho


আংটি চুরির অভিযোগে স্কুলছাত্রীকে বিবস্ত্র করে তল্লাশি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ নভেম্বর, ২০১৭ ১০:০১



আংটি চুরির অভিযোগে স্কুলছাত্রীকে বিবস্ত্র করে তল্লাশি

শুধুমাত্র একটি সোনার আংটি চুরির অভিযোগে বাড়িতে সালিশ বসিয়ে এক নাবালিকা স্কুলছাত্রীকে নগ্ন করে তল্লাশি চালানো হয়েছে। শুধু তাই নয়, জরিমানা করে নেওয়া হলো সাড়ে তিন হাজার টাকাও।

এই মধ্যযুগীয় বর্বরতার ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের তেহট্টর পলাশিপাড়ায়। ইতিমধ্যে এ ঘটনায় জড়িত থাকার জন্য দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।  

পুলিশ জানিয়েছে, গতকাল বৃহস্পতিবারই গ্রেপ্তারকৃতদের তেহট্ট আদালতে তোলা হয়।   তাদের নাম নাসির শেখ ও শহিদ শেখ। দুজনেরই বাড়ি পলাশিপাড়ার পুকুরপাড়া এলাকায়।

এ বিষয়ে আরো পড়ুন-গুঁড়া দুধ কিনতে দোকানে গিয়েছিল কিশোরী! তারপর ...

জানা গিয়েছে, গত ৭ নভেম্বর টিফিনের পর নবম শ্রেণির ওই স্কুলছাত্রীকে তারই এক সহপাঠিনী এসে জানায় তার আংটি পাচ্ছে না। এরপরই স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা ছাত্রীটিকে কয়েকবার পরীক্ষা করেন। কিন্তু আংটি পাওয়া যায়নি। তবে স্কুল ছুটি হতেই অভিযোগকারী ছাত্রীর মামার বাড়ির লোকজন বাড়ি ফেরার পথে নির্যাতিতা ছাত্রীটিকে তুলে নিয়ে যায়।

এরপরই সেখানে পাঁচ থেকে ছয়বার তাকে নগ্ন করে তল্লাশি চালানো হয়। এখানেই শেষ নয়। সালিশি সভা বসিয়ে তাকে কাগজে সইও করিয়ে নেওয়া হয়। বলা হয়, সাড়ে তিন হাজার টাকা জরিমানার অর্থ না দিলে তাকে ছাড়া হবে না।  

এদিকে বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা হয়ে গেলেও মেয়ে বাড়ি না ফেরায় চিন্তিত হয়ে পড়েন তার মা-বাবা। তারা ঘটনাস্থলে যান। শেষে ধার করে টাকা দেওয়ার পর ওই ছাত্রীটিকে ছাড়া হয়। তবে এর পরই অভিযুক্তদের বাড়ি থেকে ক্রমাগত হুমকি দেওয়া হতে থাকে। আর সেই ভয়েই বেশ কিছুদিন পরে থানায় অভিযোগ জানায় ছাত্রীটির পরিবারের পক্ষ থেকে।

এ বিষয়ে আরো পড়ুন-হাত-পা বেঁধে গৃহবধূকে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ২
এদিকে এ ঘটনার কথা প্রকাশ্যে আসার পরই এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। এর পরই পুলিশের কাছে সমস্তটা জানিয়ে অভিযোগ দায়ের করে ওই পরিবার। আর অভিযোগ পেয়েই তদন্তে নামে পুলিশ। গ্রেপ্তার করা হয় নাসির ও শহিদকে।  

জানা গিয়েছে, গ্রেপ্তারকৃতরা সম্পর্কে যে ছাত্রীর আংটি হারিয়েছে তার দাদু। এদের বিরুদ্ধে পকসো আইনে মামলা রুজু হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ভয় পেলেও এবার অভিযুক্তদের কড়া শাস্তির দাবি জানিয়েছে ওই ছাত্রী এবং তার পরিবারের লোকজন।


মন্তব্য