kalerkantho


‘উপাসাগরীয় মিত্রদের ছাড়াই হাজার গুন ভালো আছে কাতার’

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ নভেম্বর, ২০১৭ ১৮:৪৮



‘উপাসাগরীয় মিত্রদের ছাড়াই হাজার গুন ভালো আছে কাতার’

সৌদি আরব এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের ও তাদের মিত্রদের সহায়তা ছাড়াই কাতার হাজার গুন ভালো আছে বলে মন্তব্য করেছেন কাতারের প্রধান আমির শেখ তামিম বিন হাম্মাদ আল-সানি। মঙ্গলবার দেশটির সংসদের উচ্চকক্ষ শুরা কাউন্সিলের সদস্যদের উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে এই মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘সৌদি আরব এবং তার মিত্ররা আমাদের ওপর যে অবরোধ আরোপ করেছে তাকে আমরা ভয় পাই না। তাদের ছাড়াই আমরা হাজার গুন ভালো আছি। ’

‘তবে আমাদেরকে সতর্ক থাকতে হবে। ’

শেখ তামিম আরো জানান, তার সরকার বেশ কিছু খাদ্য নিরাপত্তা প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য কাজ করছে। আর পানির নিরাপত্তায় বিশেষ মনোযোগ দেওয়া হয়েছে। তার মানে সাবেক আরব মিত্রদের ছাড়াই ভবিষ্যত নির্মাণের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে কাতার।

ইরান, তুরস্কের পর সম্প্রতি স্পেনও কাতারের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সহায়তার জন্য হাত বাড়িয়ে দিয়েছে চার আরব দেশের অবরোধের মধ্যেই।

সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন এবং মিশর গত জুনে কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে সার্বিক অবরোধ। এরপর আরব আমিরাত তার সঙ্গে থাকা কাতারের একমাত্র ভুমি সীমান্তটি বন্ধ করে দেয়।

তাদের অভিযোগ কাতার ইসলামি চরমপন্থীদেরকে সহায়তা করছে এবং ইরানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক স্থাপন করেছে। যার লক্ষ্য হলো আরব দেশগুলোতে বিপ্লব রপ্তানি করা।

কাতার ওই অভিযোগ অস্বীকার করেছে এবং তার বিরুদ্ধে অবরোধ আরোপকে তার সার্বভৌমত্বের ওপর হস্তক্ষেপ বলেও আখ্যায়িত করেছে।

কুয়েত ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দু পক্ষের মধ্যে সমঝোতা করে দিতে চাইলে উভয় পক্ষই তাতে রাজি হয়নি। কাতার বা সৌদি জোট কেউই আলোচনার টেবিলে বসতে চায়নি। গত ৩৬ বছরের জিসিসি বা গালফ কোঅপারেশন কাউন্সিলের সদস্য রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে এমন তীব্র বিরোধ আর কখনো দেখা যায়নি।

শেখ তামিম আরো বলেন, তার দেশ শুরা কাউন্সিলের নির্বাচন করারও পরিকল্পনা করছে। বর্তমানে যার ৪৫ জন সদস্যই তার হাত দিয়ে নিযুক্ত হয়েছিলেন।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় তরল প্রাকৃতিক গ্যাসের রপ্তানিকারক কাতার দাবি করছে, এই বিবাদের বিপর্যয় কাটিয়ে উঠতে পারবে তারা।

সৌদি জোটের অবরোধের প্রথম দুই মাসে কাতার তার অর্থব্যবস্থাকে টিকিয়ে রাখতে ৩৮.৫ বিলিয়ান মার্কিন ডলার রাষ্ট্রীয়ভাবে ভর্তুকি দিয়েছে। যা কাতারের মোট জিডিপির ২৩%।

২০২২ সালের ফুটবল বিশ্বকাপের হোস্ট কাতার দাবি করছে তার অর্থনীতি এই সংকট মোকাবিলার জন্য যথেষ্ট শক্তিশালী আছে।

সূত্র: এএফপি


মন্তব্য