kalerkantho


পদ্মা সহ ১০ নদীর বয়ে আনা প্লাস্টিকের আবর্জনায় বিষাক্ত হচ্ছে সমুদ্র!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ অক্টোবর, ২০১৭ ১৯:২৬



পদ্মা সহ ১০ নদীর বয়ে আনা প্লাস্টিকের আবর্জনায় বিষাক্ত হচ্ছে সমুদ্র!

এশিয়ার ৮টি ও আফ্রিকার ১০টি নদীর প্লাস্টিকের আবর্জনাতেই বিষাক্ত হচ্ছে সমুদ্র। আর সেই তালিকায় অনেক উপরেই নাম রযেছে আমাদের দেশের পদ্মা নদীর নাম।

ভারতে যার নাম গঙ্গা। বিজ্ঞানীদের তথ্য অনুযায়ী, গঙ্গা-সহ মোট ১০টি গুরুত্বপূর্ণ নদী দিয়েই বিশ্বের ৯৫ শতাংশ প্লাস্টিক সমুদ্রে গিয়ে মিশছে। চরম ক্ষতির মুখে পড়তে চলেছে পরিবেশ ও মানব সম্পদ।

প্রতিবছর সমুদ্রে প্রায় মিলিয়ন টন প্লাস্টিক গিয়ে জমা হয়। আর এর ফলেই সামুদ্রিক ও বিশ্ব পরিবেশের সামঞ্জস্য নষ্ট হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।
তাঁদের মতে, এশিয়া ও আফ্রিকার মোট ১০টি নদীর তীরেই সবচেয়ে বেশি মানুষের বসবাস। ফলে তাদের ব্যবহৃত প্লাস্টিক নদী দিয়ে বয়ে গিয়েই সমু্দ্রে গিয়ে পড়ছে। আর এই ১০টি নদীতেই সবচেয়ে বেশি প্লাস্টিকের মতো বিষাক্ত জিনিস বহন করছে। শুধু প্লাস্টিক ব্যাগ নয়, প্লাস্টিকের বোতল, কনটেইনার সবই জমা হয়।

ফলে সমুদ্রের গভীরে থাকা প্রাণীরা অনেকসময়ই প্লাস্টিক গিলে ফেলে। সিবার্ডস, সামুদ্রিক প্রাণীরা প্লাস্টিককে খাবার ভেবে খেয়ে ফেল। প্লাস্টিকের বিষে বহু প্রাণী ও পাখি মারা গিয়েছে। কিন্তু হুঁস ফেরেনি মানব জাতির। দিন দিন বেড়ে চলা প্লাস্টিকের ব্যবহারই পরিবেশ দূষিত করছে বলে দাবী বিজ্ঞানীদের। আর এটাই পরবর্তীক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় ইস্যু হয়ে দাঁড়াবে বলে আশঙ্কা করছেন তাঁরা।

জার্মানির এনভায়রনমেন্টাল রিসার্চ সেন্টারের বিজ্ঞানী ক্রিস্টান স্কেমিডট জানিয়েছেন, এটি এক বা ৪ বছরে হয়নি। বহু বছর ধরেই ধীরে ধীরে প্লাস্টিকের আবর্জনা গিয়ে সমুদ্রে পড়ছে। এ থেকে শুধু সামুদ্রিক মাছ বা সামুদ্রিক পরিবেশেরই ক্ষতি হচ্ছে তা নয়, উল্টো মানবজীবনেও খুব বড় ধরনের বিপদ আনতে চলেছে।

এত বেশি প্লাস্টিকের আবর্জনা সমুদ্রে রয়েছে, প্রতিদিন পরিস্কার করলেও, সেই আবর্জনা নিঃশেষ করা যাবে না। সচেতনতার পাশাপাশি প্লাস্টিক কীভাবে কম ব্যবহার করা যায়, সে ব্যাপারে বিশেষভাবে নজর রাখতে হবে আমাদের সবাইকে।


মন্তব্য