kalerkantho


টিপু সুলতানকে বর্বর খুনি ও গণধর্ষক বললেন বিজেপি মন্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ অক্টোবর, ২০১৭ ১৫:৫৭



টিপু সুলতানকে বর্বর খুনি ও গণধর্ষক বললেন বিজেপি মন্ত্রী

ছবি অনলাইন

অষ্টাদশ শতাব্দীর শেষভাগে জন্মভূমির স্বাধীনতার জন্য ব্রিটিশবিরোধী যুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী মহীশূরের শাসক টিপু সুলতানের জন্মদিন উদযাপন নিয়ে ভারতে বিশেষ করে কর্নাটকে তুমুল বিতর্ক চলছে কয়েক বছর ধরেই। এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি কর্নাটকের ইউনিয়ন মন্ত্রী অনন্ত কুমার হেগরে রাজ্যে সরকারিভাবে আয়োজিত টিপু সুলতানের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন।

সম্প্রতি এক টুইটে তিনি বলেন, আমি কর্নাটক সরকারকে এমন এক বর্বর খুনি, কট্টরপন্থি আর গণধর্ষককে মহিমান্বিত করতে আয়োজিত অনুষ্ঠানে আমাকে দাওয়াত না দেওয়ার জন্য বলে দিয়েছি।   

এমন বিরোধীতার কারণ হিসেবে তিনি আরও জানান, টিপু সুলতান হিন্দু বিরোধী ছিলেন। এছাড়া তিনি কান্নারা (কর্নাটক) বিরোধীও ছিলেন, এমন দাবি করেন অনন্ত।

অনন্ত কুমার বলেন, ‘টিপু ছিলেন কান্নারা-বিরোধী ও হিন্দু-বিরোধী। কর্নাটকের সব অধিবাসীর এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে থাকা উচিত। সরকারকে বলা উচিত আপনাদের সরকারের পক্ষ থেকে টিপুর জয়ন্তি পালন করা উচিত নয়। কিন্তু তারা ভোট-ব্যাংকের রাজনীতি করছে। ’

মন্ত্রী অনন্ত সম্প্রতি এক চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রীকে লিখেছেন, তাকে যেন টিপু সুলতানের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো না হয়।

এর আগেও কর্নাটকে টিপু জয়ন্তী উদযাপন নিয়ে কংগ্রেস ও বিজেপির মধ্যে তীব্র বাগবিতণ্ডা হয়েছে।

এ নিয়ে দাঙ্গায় কয়েকজন নিহতও হয়েছেন।

কিন্তু টিপু সুলতানের মতো ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী একজন দেশ্রেপমিক ও ঐতিহাসিক চরিত্রকে নিয়ে কেন ভারতে নতুন করে এই বিতর্ক? এ প্রসঙ্গে জানা যায়, কর্নাটক রাজ্যে ক্ষমতাসীন কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন সরকার টিপু সুলতানের জন্মদিন পালন শুরু করে। আর এতে বিরোধী বিজেপি ও অন্য হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলো প্রতিবাদী হয়ে ওঠে। তাদের অভিযোগ টিপু সুলতান শাসক থাকাকালে হিন্দু ও অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের ওপর গণহত্যা চালিয়েছেন।

তবে কট্টর হিন্দুত্ববাদী দল বিজেপির টিকিটে উত্তরা কান্নারা আসন থেকে পাঁচবার নির্বাচিত এমপি এবং বর্তমানে ইউনিয়ন মন্ত্রী অনন্ত কুমার হেগরের এমন বক্তব্যে রাজনৈতিক অঙ্গনে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। তার বক্তব্যের বিরোধিতা করে কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী সিদ্ধারামাইয়া বলেন, সরকারের অংশীদার হয়ে অনন্ত হেগড়ের এমন চিঠি লেখা উচিৎ হয়নি। তিনি আরও বলেন, টিপু জন্মজয়ন্তী অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্র কেন্দ্র ও রাজ্যের সব নেতাকে পাঠানো হয়। তাতে যোগ দেওয়া না দেওয়া যার যার মর্জির ওপর নির্ভর করে।

রাজ্যে ক্ষমতাসীন দল কংগ্রেস নেতা ও মুখ্যমন্ত্রী সিদ্ধারামাইয়া আরও বলেন, এটাকে এখন রাজনৈতিক ইস্যু করা হচ্ছে। ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে চারটি যুদ্ধে টিপু সরাসরি অংশ নেন।     

প্রসঙ্গত, বিতর্ক ও উত্তেজনা সৃষ্টিকারী অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটানোর ক্ষেত্রে হেগড়ে আলোচিত নাম। কিছুদিন আগে এক হাসপাতালের দুই চিকিৎসককে পিটিয়ে আহত করেন তিনি নিজে। মন্ত্রীর অভিযোগ ছিল ওই চিকিৎসকরা তার মায়ের চিকিৎসায় ঢিলেমি করেছিলেন।

গত কয়েক বছর ধরেই কর্নাটকে টিপুর জন্মদিন পালিত হয়। মূলত মুসলিমপ্রধান এলাকাগুলোতে এজন্য ঘটা করে শোভাযাত্রা বের হয়। কিন্তু এই টিপু উৎসব থেকে নিজেদের দূরে সরিয়ে রাখে বিজেপি ও অন্য হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলো। এমন পটভূমিতে মন্ত্রী অনন্তর সাম্প্রতিক বক্তব্য সে বিতর্ককেই যেন আরও একধাপ এগিয়ে নিল। কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন বিজেপি ও রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ (আরএসএস) শুরু থেকেই টিপু জয়ন্তী অনুষ্োনের বিরোধীতা করে আসছে। তাদের মেত এটা সংখ্যালঘুদের তুষ্ঠ করতে কংগ্রেসের একটা কৌশল মাত্র।

সূত্র : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, নবভারতটাইমস


মন্তব্য