kalerkantho


উন্মাদ ট্রাম্পকে চরম মূল্য দিতে হবে: কিম

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১২:১১



উন্মাদ ট্রাম্পকে চরম মূল্য দিতে হবে: কিম

ডোনাল্ড ট্রাম্পকে উন্মাদ বলা উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন মনে করেন, পরমাণু অস্ত্র উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ বন্ধ না করে তিনি সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আজ শুক্রবার দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদ মাধ্যম কেসিএনএর বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, নিজের সর্বশেষ ভাষণের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টকে চরম মূল্য দিতে হবে বলেও হুমকি দিয়েছেন কিম।

বলেন, ট্রাম্পের কাছ থেকে তার ভাষণের চরম মূল্য আদায় করতে উত্তর কোরিয়া নিজের সর্বোচ্চ ক্ষমতা প্রয়োগ করে এর কঠোর পাল্টা ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। অগ্নিকুণ্ড বর্ষণের মাধ্যমে আমি নিশ্চিতভাবে এবং অবশ্যই যুক্তরাষ্ট্রের মানসিক বিকারগ্রস্ত এই বৃদ্ধকে আমার হাতের মুঠোয় আনব। বেশিরভাগ সময়ই লোকচক্ষুর আড়ালে থাকা কিমের বিবৃতিটি কেসিএনএ ইংরেজিতে প্রকাশ করা হয়।

কিম বলেন, ট্রাম্পের মন্তব্য আমাকে আতঙ্কিত করা বা থামানোর পরিবর্তে আমাকে এটা বুঝিয়েছে যে, আমি সঠিক পথই বেছে নিয়েছি এবং শেষ পর্যন্ত আমাকে এই একটি মাত্র পথেই চলতে হবে। সারা বিশ্বের চোখের সামনে ট্রাম্প আমাদের অস্তিত্ব অস্বীকার করে এবং আমাকে ও আমার দেশকে বিচ্ছিন্ন করে ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়ঙ্করভাবে একটি যুদ্ধের ঘোষণা দিয়েছেন। মঙ্গলবার জাতিসংঘে দেওয়া নিজের প্রথম ভাষণে ট্রাম্প বলেছিলেন, যদি আমেরিকাকে নিজেদের সুরক্ষায় ব্যবস্থা গ্রহণে বাধ্য করা হয় তবে তারা উত্তর কোরিয়াকে সম্পূর্ণ ধ্বংস করে দেবে।

তিনি কিমকে আত্মঘাতী মিশনে থাকা রকেট ম্যান বলেও ব্যঙ্গ করেন। ট্রাম্পের দেওয়া ভাষণকে কুকুরের ঘেউ ঘেউ বলে মন্তব্য করেছেন বর্তমানে নিউইয়র্কে অবস্থান করা উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রি ইয়ং হো। গত কয়েক মাসে উত্তর কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র ক্রমাগত একে অপরকে ধ্বংস করে দেওয়ার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে।

যাবতীয় নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে উত্তর কোরিয়া উদ্বেগজনক হারে তাদের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার হারও বাড়িয়ে দিয়েছে। এছাড়া এ মাসের শুরুতে নিজেদের ষষ্ঠ এবং সবচেয়ে শক্তিশালী পারমাণবিক পরীক্ষা চালায় বিশ্বের সঙ্গে প্রায় বিচ্ছিন্ন দেশটি।

এর জেরে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ সর্বসম্মতিক্রমে দেশটির ওপর নতুন বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। এ নিষেধাজ্ঞার আওতায় উত্তর কোরিয়ার বস্ত্র রপ্তানি ও অপরিশোধিত জ্বালানি তেল আমদানির ওপর বাধা-নিষেধ আরোপ করা হয়। জাপানের ওপর দিয়ে ফের ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে নতুন নিষেধাজ্ঞার জবাব দেয় উত্তর কোরিয়া। পররাষ্ট্রমন্ত্রী রি ইয়ংয়ের বরাত দিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদ সংস্থা ইয়নহাপ নিউজ এজেন্সি জানায়, জাতিসংঘে দেওয়া ভাষণে ট্রাম্প উত্তর কোরিয়াকে যে হুমকি দিয়েছেন তার জবাব দিতে পিয়ংইয়ং প্রশান্ত মহাসাগরে শক্তিশালী হাইড্রোজেন বোমার পরীক্ষা চালাতে পারে।

তবে কিম ঠিক মনে করছেন যে বিষয়ে তিনি স্পষ্ট করে কিছু জানেন না বলেও জানান রি। উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জোরদার করতে বৃহস্পতিবার নতুন একটি আদেশে সাক্ষর করেন ট্রাম্প। ওই আদেশে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থমন্ত্রণালয় পিয়ংইয়ংয়ের সঙ্গে বাণিজ্য করছে এমন ফার্ম ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের কথা ভাবা হচ্ছে।

 


মন্তব্য