kalerkantho


ভূমিকম্পে গুঁড়িয়ে গেল স্কুল, দুর্ভাগা খুদে শিক্ষার্থীদের কপালে যা ঘটল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১০:১৪



ভূমিকম্পে গুঁড়িয়ে গেল স্কুল, দুর্ভাগা খুদে শিক্ষার্থীদের কপালে যা ঘটল

চারিদিকে যে দিকে নজর যায় সেদিকেই ভেঙে পড়া কংক্রিটের জঙ্গল অথবা ফাটল ধরা বাড়ি-ঘর। বুধবার সকালের ভূমিকম্পে এখন এমনই চেহারা নিয়েছে মেক্সিকো সিটি।

কীভাবে বাড়ি ঘর ভেঙে পড়ছে? কীভাবে বালির মতো ঝুরঝুর করে পড়ে যাচ্ছে কংক্রিটের স্ল্যাব? এই সবই দিনভর ভাইরাল হয়ে উঠেছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে, সব নজর টেনে নিল মেক্সিকোর কোলেজিও এনরিকে রেবসেমেন প্রাইভেট স্কুল।

ভূমিকম্পের সময় এই স্কুলে ক্লাসের মধ্যেই আটকে পড়েছিল বহু পড়ুয়া। আর সেই তাদের ঘাড়ের ওপরই ভেঙে পড়ে স্কুল বিল্ডিং। অধিকাংশ শিক্ষক-শিক্ষিকারা প্রাণ বাঁচাতে পারলেও আতঙ্কে ক্লাসের মধ্যেই আটকা পড়ে গিয়েছিল খুদে পড়ুয়ারা। এখন পর্যন্ত পাওয়া খবরে অন্তত ২০ জন ছাত্রছাত্রীর দেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

স্কুলের ধ্বংসস্তূপের নিচে এখনো বহু ছাত্রছাত্রীর দেহ আটকে আছে বলে জানা গিয়েছে। এই মুহূর্তে এই স্কুলে নিখোঁজ পড়ুয়ার সংখ্যা ৩০। জানা গিয়েছে, স্কুল বাড়ি ভেঙে পড়ার ঘটনায় অন্তত দুজন শিক্ষাকর্মীর মৃত্যু হয়েছে।

মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট এনরিকে পেনা নিয়েতো এখনো পর্যন্ত এই ঘটনায় ২২ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন। উদ্ধারকারীরা জানিয়েছেন, ৩০ নিখোঁজ ছাত্রের সঙ্গে খোঁজ মিলছে না আটজন শিক্ষকেরও। মনে করা হচ্ছে ভেঙে পড়া চারতলা স্কুলবাড়ির তলাতেই চাপা পড়ে আছে দেহ।

বহু অভিভাবক তাঁদের নিখোঁজ ছেলে-মেয়ের ছবি নিয়ে স্কুলের সামনে পড়ে রয়েছেন। তাঁদের একটাই প্রার্থনা যেন বেঁচে থাকে তাঁদের আদরের সন্তান। রাত হয়ে গেলেও তাই কোলেজিও এনরিকে রেবসেমেন প্রাইভেট স্কুলে ধ্বংসস্তূপ সরিয়ে উদ্ধারের কাজ চলছে।

এদিকে, এখনো পর্যন্ত পাওয়া খবরে জানা গিয়েছে মেক্সিকোর ভূমিকম্পে ২৭১ জনের মৃত্যু হয়েছে। মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট নির্দেশ দিয়েছেন প্রত্যেকটি মানুষকে ধ্বংসস্তূপের তলা থেকে বের করার। যতক্ষণ না পর্যন্ত ধ্বংসস্তূপ না সরানো যাচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত উদ্ধার কাজ কোনোভাবে থামবে না বলেও জানিয়েছেন তিনি।

জানা গিয়েছে মেক্সিকো শহরেই এই মুহূর্তে ৯১টি দেহ উদ্ধার হয়েছে। পশ্চিম হ্যাম্পশায়ারে মৃত্যু হয়েছে ৭১ জনের। পুয়েবলা প্রদেশে মারা গিয়েছেন ৪৩ জন। স্টেট অফ মেক্সিকোতে মৃত্যু হয়েছে ১২ জনের। ইতিমধ্যেই মেক্সিকোতে জাতীয় শোক ঘোষণা করা হয়েছে।


মন্তব্য