kalerkantho


অপহরণ রুখে পাচার চক্রের হদিশ দিল ছাত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ আগস্ট, ২০১৭ ১০:৫৭



অপহরণ রুখে পাচার চক্রের হদিশ দিল ছাত্রী

ফাইল ছবি

উপস্থিত বুদ্ধির কারণে পাচারকারীদের হাত থেকে নিজেকে রক্ষা করার পাশাপাশি আন্ত:রাজ্য পাচার চক্রের দুইজনকে পুলিশের হাতে ধরিয়ে দিল দশম শ্রেণির এক ছাত্রী। এ ঘটনায় পুলিশ শারমিনা মন্ডল ও আবু হানিফাকে গ্রেপ্তার করেছে।

গ্রেপ্তারকৃতদের গতকাল রবিবার বারুইপুর মহকুমা আদালতে হাজির করা হলে বিচারক ৪ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন।

থানা পুলিশ সূত্রে খবর, গত বুধবার ভারতের জয়নগর থানার চকপাঁচঘরা হাইস্কুলের দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে তারই স্কুলের একাদশ শ্রেণির এক ছাত্রী বন্ধুর বাড়ি থেকে খাতা আনার নাম করে গোচারণ রেল স্টেশনে নিয়ে যায়। সেখানে পানি খাওয়ার অজুহাতে একাদশ শ্রেণির ছাত্রীটি উধাও হয়ে গেলে সে কান্নায় ভেঙে পড়ে। তখনই অপরিচিত তরুণী শারমিনা তাকে সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসে। বাড়ি ফিরিয়ে দেওয়ার নাম করে তাঁকে ট্রেনে করে বারুইপুরের একটি বাড়িতে নিয়ে যায়।  সেখানে জোর করে তার কানের দুটি সোনার দুল ও স্কুলের পোশাক খুলে নেওয়া হয়। লোভ দেওয়া হয়, মুম্বাইতে ভালো কাজ পাইয়ে দেওয়ার। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে ছাত্রীটি ওই তরুণীকে জানায়, তার এক মামার কাছে অনেক টাকা রাখা আছে। ফোন করলে সেই টাকা পাওয়া যাবে।

টাকার লোভে অপহৃত ছাত্রীটিকে ফোন করতে দিলে সে বারুইপুর আছে বলে পরিবারের লোকজনকে জানিয়ে দেয়। একইসঙ্গে ওই তরুণীকে সে বলে, বারুইপুর স্টেশনরোড এলাকায় গেলে সে টাকা পাবে।

এদিকে মেয়ে নিখোঁজের ঘটনায় বুধবার থেকেই উদ্বিগ্ন ছিলেন নিখোঁজ ছাত্রীর পরিবার। খবর আসা মাত্রই তাঁরা সবাই বারুইপুর রওনা দেয়। অপরদিকে টাকার লোভে স্টেশনরোড এলাকায় ছাত্রীটিকে নিয়ে আসে ওই তরুণী। সেখানে ছাত্রীর পরিবারের লোকরা তাঁকে পাকড়াওয়ের চেষ্টা করলে তরুণীটি পালিয়ে যায়। এরপর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে এ ঘটনার তদন্তে নামে জয়নগর থানা পুলিশ।

সূত্র আরো জানায়, শনিবার সন্ধ্যার দিকে জয়নগরের ধোসাহাট এলাকা থেকে অপহরণকারী শারমিনা মন্ডল নামের ওই তরুণীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে তাকে জেরা করে ওই রাতেই জয়নগরের তিলপি গ্রাম থেকে এই চক্রের প্রধান হোতা আবু হানিফাকে গ্রেপ্তার করা হয়।  

এদিকে এ ঘটনার পর থেকে পলাতক একাদশ শ্রেণির ওই ছাত্রীটি। তাঁর খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।
সূত্র: কলকাতা টুয়েন্টিফোর


মন্তব্য