kalerkantho


সাহস বটে! আসল পুলিশের কাছে ঘুষ চাইল ভুয়া পুলিশ!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ আগস্ট, ২০১৭ ১৭:৩৮



সাহস বটে! আসল পুলিশের কাছে ঘুষ চাইল ভুয়া পুলিশ!

কথায় আছে, চোরের দশ দিন আর গৃহস্থের একদিন। ও, না না, গৃহস্তের জায়গায় 'পুলিশ' হবে।

অনেকের সঙ্গে প্রতারণা চালিয়ে আসার পর এবার 'পড়বি তো পড় মালির ঘাড়ে' অবস্থা হলো তন্ময় বণিক নামে ২০ বছর বয়সী সেই প্রতারক যুবকের। ঘটনা ওপার বাংলার। তন্ময় রীতিমতো নিজেকে আইপিএস অফিসার পরিচয় দিয়ে প্রতারণার ধান্দা খুলে বসেছিল। পুলিশের সঙ্গে কারসাজি করতে গিয়েই পুলিশের জালে জড়ায় সে। কী হয়েছিল সেদিন?

কলকাতা পুলিশের ফেসবুক পেইজে ঘটনার বিবরণ পাওয়া যায়। জানা গেছে, কলকাতা পুলিশের রিজার্ভ ফোর্সের কনস্টেবল তমাল গোস্বামীর বাড়ি বালুরঘাটে। কিছুদিন আগেই তার বাবার নার্ভজনিত সমস্যা ধরা পড়ে। তার মা-ও সম্পূর্ণ সুস্থ নন। কলকাতায় থেকে বাবা-মার চিকিৎসা করানো সুবিধা হবে বলে শহরের মধ্যে একটি বাড়ির সন্ধানে ছিলেন তিনি।

এ সময়ে বেশ কাকতালীয় ভাবেই তমালের সঙ্গে ফেসবুকে পরিচয় হয় ঈশান বন্দ্যোপাধ্যায় নামে এক ব্যক্তির। ঈশানের প্রোফাইলে লেখা ছিল সে একজন আইপিএস অফিসার। প্রোফাইল পিকচারও সেই কথাই বলছিল। মেসেঞ্জারে কথাবার্তা শুরু হলে নিজেকে পশ্চিমবঙ্গ ক্যাডারের অফিসার হিসেবেও পরিচয় দেয় ঈশান। কথাবার্তা কিছুদিন গড়ানোর পর তমাল নিজের সমস্যার কথা জানান ঈশানকে।

তিনি বলেন, কলকাতায় একটি বাড়ির সন্ধানে রয়েছেন কিছুদিন ধরেই। যেহেতু ঈশান একজন সর্বভারতীয় সার্ভিসের অফিসার, তাই এই ব্যাপারে কিছু সাহায্যের অনুরোধ করেন তমাল। উত্তরে ঈশান জানায়, কোয়ার্টারের জন্য অনেক দরখাস্ত ইতিমধ্যেই জমা রয়েছে, তবে কিছু টাকা অগ্রিম তার ব্যক্তিগত সহকারীকে দিলে সে ক্ষমতাবলে ব্যবস্থা করে দেবে। তন্ময়ের এই কথাতেই প্রথম সন্দেহ হয় রিজার্ভ ফোর্সের কনস্টেবল তমালের। ঘটনাটি সাথে সাথে সাইবার সেলে জানান তিনি।

পুলিশী তদন্ত শুর হতেই বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। ঈশান বন্দ্যোপাধ্যায় নামে কোনো আইপিএস অফিসার পশ্চিমবঙ্গে নেই। ঈশান বন্দ্যোপাধ্যায় নামটিও ভুয়া। তন্ময় বণিক নামে ২০ বছর বয়সী এক যুবক ইন্ডিয়ান রেভিনিউ সার্ভিসের অফিসার বিনয় জি. এম এর লিঙ্কডিন প্রোফাইল থেকে ছবি ডাউনলোড করে সেই ছবি দিয়ে ভুয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলে। এরপর তন্ময়কে টাকার লোভ দেখিয়ে ডেকে এনে হাতে হাতকড়া পরিয়ে দেওয়া হয়।


মন্তব্য