kalerkantho


ছাত্রীর মাথায় সিঁদুর দিয়ে বিপাকে শিক্ষক

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ মে, ২০১৭ ২২:৪৮



ছাত্রীর মাথায় সিঁদুর দিয়ে বিপাকে শিক্ষক

ছবি : বিক্ষুদ্ধ জনতা

ভারতের মালদহের ভিমটোলা পুলিনটোলা জুনিয়ার হাইস্কুলে নাবালিকা ছাত্রীর সিঁথিতে সিঁদুর দিয়ে বিপাকে পড়েন পঞ্চাশোর্ধ শিক্ষক ধনপতি মণ্ডল (অবিবাহিত)। ধনপতি প্রেমে পড়েছিলেন সেই নাবালিকা ছাত্রীর। তাকে জোর করে সিঁদুর দেওয়াই নয়, শাঁখাও পরানোর চেষ্টা করেন তিনি। এমনকী মালাও নিয়ে এসেছিলেন। সেসব আর পরাতে পারেননি। ধনপতির এই প্রেম নিবেদনের ঘটনায় বিপদে পড়েন অন্যান্য শিক্ষকরা।  

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এবেলা সূত্রে জানা গেছে, তখন ছাত্র-ছাত্রীরা বসেছে মিড ডে মিল খেতে। খাওয়ার পরে এক ছাত্রী কলে থালা-বাটি ধোয়ার সময়ে হঠাৎই স্কুলের শিক্ষক ধনপতি মণ্ডল সেখানে এসে জোর করে সেই ছাত্রীর সিঁথিতে ঘষে দেন সিঁদুর।

সিঁদুর-দানের পরেই স্বাভাবিক কারণেই কান্নাকাটি জুড়ে দেয় ছাত্রীটি। বিপদ দেখে স্কুল থেকে চম্পট দেন ধনপতিবাবু। কিন্তু গ্রামে ও ছাত্রীটির বাড়িতে খবর যেতেই ছাত্রীটির পরিবারের লোকজন ও বাসিন্দারা ছুটে আসেন স্কুলে।

অন্যান্য শিক্ষকদের ঘিরে ধরে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন গ্রামবাসীরা। অফিস ঘরে তাঁদের তালাবন্দি করে রাখায় স্কুলের মধ্যেই আটকে থাকতে হয় শিক্ষকদের। সেখানে তাঁদের মারধর করা হয় বলেও অভিযোগ পাওয়া যায়।

ঘটনাস্থলে পৌঁছে ভূতনি থানার পুলিশ প্রধান শিক্ষক প্রণব মণ্ডল সহ অন্যান্য শিক্ষকদের উদ্ধার করে। তবে নাবালিকা ছাত্রীর সাথে এই ধরনের ঘটনা ঘটে যাওয়ায় আতঙ্কিত অন্যান্য ছাত্রীরা। এই ঘটনার পর ভূতনি থানায় লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন ওই ছাত্রীর মা। পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।  


মন্তব্য