kalerkantho


স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া করে ছেলেকে খুন, বাবা গ্রেপ্তার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ মার্চ, ২০১৭ ০১:১৪



স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া করে ছেলেকে খুন, বাবা গ্রেপ্তার

বাবা-মায়ের সম্পর্কের টানাপোড়েনের জেরে খুন হল শিশুসন্তান। এই ঘটনায় অভিযোগ উঠেছে বাবার বিরুদ্ধে।

পুলিশ অভিযুক্ত বাবাকে গ্রেপ্তার করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গোঘাটের কুমারগঞ্জ গ্রাম পঞ্চায়েতের শালিকোনা গ্রামে।
মৃত শিশুপুত্রের নাম রোহিত পাল। বয়স মাত্র চার বছর চার মাস।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বাবা মন্টু পাল পেশায় দিনমজুর। বেশ কিছুদিন ধরেই মন্টুর সঙ্গে তাঁর স্ত্রী রাখির বনিবনা হচ্ছিল না। এমনকী সম্পর্ক এতটাই তিক্ততার পর্যায়ে চলে যায় যে তারা নিজেদের বিবাহ বিচ্ছেদ নিয়েও নাকি ভাবনাচিন্তা শুরু করেছিল। এই নিয়ে দুজনের মধ্যে নিয়মিত ঝগড়াঝাটি লেগেই ছিল। শুক্রবার সন্ধ্যা থেকেই এ নিয়ে আবার অশান্তি শুরু হয়।

প্রতিবেশীরা জানান, রাখি বাচ্চাটিকে নিয়ে বাড়ি ছেড়ে চলে যেতে চাইছিল। কিন্তু মন্টু ছেলেকে কিছুতেই নিজের কাছছাড়া করতে রাজি ছিল না। এই নিয়ে দু’জনের মধ্যে অশান্তি চরমে ওঠে। তখনই রাগের মাথায় মন্টু নিজে বাচ্চার গলায় দড়ির ফাঁস দিয়ে টেনে ধরে। চিৎকার চেঁচামেচি শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে যান। কিন্তু ততক্ষণে শ্বাসবন্ধ হয়ে মারা যায় রোহিত। এরপর মন্টু নিজেও নাকি আত্মহত্যা করার চেষ্টা করে। ঘটনাস্থলে যায় গোঘাট থানার পুলিশ।

এরপর রাতেই তারা মন্টুকে ধরে নিয়ে যায়। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে রাখিকেও। পরে সব ঘটনা জানার পর রাখির অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ গ্রেপ্তার করে মন্টুকে। রাখির দাবি, সে ঘুমিয়ে পড়েছিল। হঠাৎ উঠে দেখে বাইরের দরজায় শিকল তোলা। তখন সে শাবল দিয়ে শিকল খুলে বাইরে বেরিয়ে দেখে মন্টু ছেলেকে মেরে ফেলেছে।

যদিও প্রতিবেশীদের দাবি, মন্টু খুবই নিরীহ স্বভাবের ছেলে। মানসিক যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরেই মুহূর্তের ভুলে সে এ কাজ করে ফেলেছে। পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাস্থল থেকে একটি দড়ি উদ্ধার হয়েছে। প্রাথমিক অনুমান, হয়ত ওই দড়ি ব্যবহার করেই মন্টু ছেলেকে মেরে ফেলেছে।

সূত্র: আজকাল


মন্তব্য