kalerkantho


গুজরাটে চলন্ত গাড়িতে বাবার সামনেই দুই মেয়েকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৫

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ মার্চ, ২০১৭ ১৫:৩০



গুজরাটে চলন্ত গাড়িতে বাবার সামনেই দুই মেয়েকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৫

ভারতে চলন্ত গাড়িতে দুই কিশোরীকে তাদের বাবার সামনেই সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় এখন পর্যন্ত পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ। ভারতের গুজরাটের দাহুদ জেলার দেবগড়ে বৃহস্পতিবার ওই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, ধর্ষিত ওই দুই কিশোরীর বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আরও আটজন পলাতক রয়েছে।

পুলিশকে ওই দুই কিশোরীর বাবা জানান, দেবগড়ে তার একটি দোকান রয়েছে। ঘটনার দিন তিনি সেখানেই ছিলেন। তার ১৩ ও ১৫ বছরের দুই মেয়েও তখন দোকানেই ছিল তার সঙ্গে।

হঠাৎ ১৩ জনের একটি দল নিয়ে কুমাত বারিয়া নামে ওই ব্যক্তি তার দোকানে চড়াও হয়। তিনজনকেই একটি গাড়িতে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। গাড়িতে ছিল ছয়জন। আর বাকিরা বাইকে করে গাড়িটিকে অনুসরণ করছিল।

চলন্ত গাড়িতে তার চোখের সামনেই দুই মেয়েকে তারা একের পর এক ধর্ষণ করতে শুরু করে। তার হাত-মুখ শক্ত করে চেপে ধরে রাখা হয়েছিল।

দুই মেয়ের ওপর এই নির্যাতন তাকে অসহায়ভাবেই সহ্য করতে হয়েছে বলে জানান তিনি। এরপর গাড়ি মান্ধব গ্রামে পৌঁছলে তাদের বাইরে ফেলে দিয়ে চম্পট দেয় অভিযুক্তরা।

পুলিশের কাছে গেলে ফল আরও খারাপ হবে বলে দুষ্কৃতকারীরা হুমকি দিয়ে যায়। দুই কিশোরীর বাবা আরও জানান, কুমাত বারিয়ার সঙ্গে তার পুরনো শত্রুতা ছিল। কিছুদিন আগেই তার সঙ্গে ব্যবসাসংক্রান্ত কোনো এক ঝামেলায় কুমাতের ছেলেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

তারপর থেকে বেশ কয়েকবার কুমাত তাকে দেখে নেওয়ার হুমকি দিয়েছিল। এমনকি ঘটনার সময় কুমাত বারবারই তার ছেলের গ্রেপ্তারের প্রসঙ্গ টেনে আনছিল বলেও তিনি জানান।

দেবগড় থানার এসআই ডি জি রাভাল জানান, দেবগড় সরকারি হাসপাতালে দুই কিশোরীর চিকিৎসা চলছে। তাদের মেডিক্যাল পরীক্ষাও সম্পন্ন হয়েছে।


মন্তব্য