kalerkantho


এবার ভয়ানক মারণাস্ত্র বানাতেও পাকিস্তানকে সাহায্য করবে চীন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ মার্চ, ২০১৭ ১২:৩৩



এবার ভয়ানক মারণাস্ত্র বানাতেও পাকিস্তানকে সাহায্য করবে চীন

বাণিজ্যিক সুরক্ষার স্বার্থে ইতিমধ্যে গদর বন্দরকে সামরিক ঘাঁটিতে পরিণত করেছে চীন। শুধু ভারতের দোরগোড়ায় সৈন্য মোতায়েনই নয়, এবার প্রকাশ্যে পাকিস্তানকে ভয়ানক মারণাস্ত্র বানাতেও সাহায্য করবে দেশটি।

চীনা সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার পাক সেনাপ্রধান কামার বাজওয়া ও চীনা সামরিক কর্তাদের মধ্যে একটি উচ্চপর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই বৈঠকে স্থির হয়, পাকিস্তানকে ব্যালিস্টিক মিসাইল, ক্রুজ মিসাইল, ট্যাঙ্ক, বিমান ও জাহাজ বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র বানাতে সাহায্য করবে বেইজিং। এছাড়াও FC-1 জিয়াওলং নামের যুদ্ধবিমান নির্মাণের অনুমতিও দেওয়া হয়েছে পাকিস্তানকে। সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানে পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়িয়ে তুলবে দুই দেশ বলেও জানিয়েছে চীনা সংবাদমাধ্যম।

এ দিন, চীন-পাকিস্তান বাণিজ্যিক করিডোরের সুরক্ষার আশ্বাসও দেয় ইসলামাবাদ। চীনে নিযুক্ত পাক রাষ্ট্রদূত মাসুদ খালিদ জানিয়েছেন, গদর বন্দরের সুরক্ষায় ১৫ হাজার সেনা মোতায়েন করতে চলেছে পাকিস্তান। এ ছাড়াও জলপথে বন্দরটির সুরক্ষার ভার নিচ্ছে পাক নৌসেনা। পাকিস্তানকে ভয়ানক সব মারণাস্ত্র দেওয়ার পক্ষে যুক্তি তুলে ধরে এক চীনা সামরিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, আল-কায়েদা ও তালেবান সন্ত্রাসবাদীদের হামলায় জর্জরিত পাকিস্তান। তাই দেশের সুরক্ষা ও শান্তি বজায় রাখার জন্যই এই পদক্ষেপ নিয়েছে চীন।

তবে বাণিজ্য ও শান্তির দোহাই দিলেও ভারতের চারপাশে সামরিক ঘাঁটি বানিয়ে ঘিরে ফেলতে চাইছে চীন এমনটাই মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল। ভারত মহাসাগরে ইতিমধ্যে ঘোরাফেরা শুরু করেছে চীনা রণতরীগুলি। এদিকে তৈরি হচ্ছে ভারতও। ইতিমধ্যে আমেরিকা, জাপান ও ভিয়েতনামের সঙ্গে সামরিক সহযোগিতা বাড়িয়ে চলেছে দিল্লি। সম্প্রতি, ভিয়েতনামের সেনাকে প্রশিক্ষণও দিতে শুরু করেছে ভারতীয় সেনা।


মন্তব্য