kalerkantho


ফের চিকিৎসায় গাফিলতি, হার্টের রোগীর পা কেটে বাদ!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ মার্চ, ২০১৭ ২১:০৪



ফের চিকিৎসায় গাফিলতি, হার্টের রোগীর পা কেটে বাদ!

ছবি : প্রতীকী

ফের চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ উঠল কলকাতার একটি নামী বেসরকারি হাসপাতাল মেডিকার বিরুদ্ধে। হৃদরোগের চিকিৎসা করতে গিয়ে রোগী সুনীল পাণ্ডের পা বাদ দিয়ে দেওয়া হল বলে অভিযোগ তাঁর পরিবারের সদস্যদের।

সোমবারই মৃত্যু হয় সুনীলের।

বুকে ব্যথা নিয়ে দক্ষিণ কলকাতার এক নামী সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। গত ৬ মার্চ অ্যাঞ্জিওগ্রাফি এবং অস্ত্রোপচার হয় তাঁর। তারপর চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন, সুনীল ঠিক আছেন। চিন্তার কোনও কারণ নেই। এরপর হঠাৎই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়, সুনীলের শারীরিক পরিস্থিতির অবনতি ঘটছে। তাঁর কিডনি কাজ করছে না। এমনকী ফুসফুসে জল জমে গিয়েছে। সুনীলের স্ত্রী বলেন, চিকিৎসক জানান, রোগ পায়ে সংক্রমিত হওয়ায় তাঁর পা বাদ দিতে হবে।

গত শনিবার অস্ত্রোপচার করে সুনীলের পা বাদ দিয়ে দেওয়া হয়। তা সত্ত্বেও তাঁর প্রাণ বাঁচাতে পারেনি হাসপাতাল। গোটা ঘটনায় হাসপাতালের উপর তীব্র ক্ষোভ উগরে দেয় পরিবার। পূর্ব যাদবপুর থানায় হাসপাতালের গাফিলতির অভিযোগ দায়ের করেছেন সুনীলের স্ত্রী। তাঁর দেহের ময়নাতদন্ত করছে পুলিশ।

যদিও গাফিলতির সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তাঁদের দাবি, রোগীকে বাঁচানোর সবরকম চেষ্টা করা হয়েছিল। সংক্রমণ আটকাতেই পা বাদ দেওয়া হয়েছিল। এদিকে সুনীলের স্ত্রী জানান, তাঁর স্বামীর রক্তচাপ, সুগার সবই স্বাভাবিক ছিল। সামান্য বুকে ব্যথা নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন। অথচ স্বামীর মৃতদেহ বাড়িতে নিয়ে যেতে হচ্ছে তাঁকে। অ্যাপোলোর পর এই ঘটনা ফের একবার বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসাকে প্রশ্নের মুখে দাঁড় করিয়ে দিল।

- ইন্টারনেট


মন্তব্য