kalerkantho


সমকামীতার দায়ে অধ্যাপককে অপসারণ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ মার্চ, ২০১৭ ০০:২৫



সমকামীতার দায়ে অধ্যাপককে অপসারণ

ভারতের বেঙ্গালুরুর সেন্ট জোসেফ কলেজের অধ্যাপককে যৌন প্রবৃত্তির জন্য তার পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হল। সমকামী অধিকার কর্মী তথা কলেজের অধ্যাপক অ্যাসলে টেলিস জানান, ‌ব্যক্তিগত মতামতে‌র জন্য তার পদ থেকে তাকে সরিয়ে দেওয়া হয়।  

টেলিস তার ফেসবুক পোস্টে জানান, বি কম দ্বিতীয় বর্ষের পড়ুয়াদের ক্লাস নেওয়ার সময় তাকে অধ্যক্ষের ঘরে ডেকে পাঠানো হয়। অধ্যক্ষের ঘরে যাওয়া মাত্রই তিনি টেলিসকে কলেজ ছাড়ার জন্য বলেন। কারণ হিসাবে অধ্যক্ষ জানান তিনি পড়ুয়াদের ব্যক্তিগত মতামত দিয়ে বিরক্ত করেন‌।  

অধ্যক্ষ বলেন, পড়ুয়ারা আপনার এই আচরণে খুবই বিরক্ত। আপনাকে কলেজে ইংরেজি সাহিত্য পড়ানোর জন্য নিয়োগ করা হয়েছে, ব্যক্তিগত মতামত দেওয়ার জন্য নয়। দয়া করে চিঠিতে সই করে আপনি এখনই কলেজ ছেড়ে চলে যান, আর কোনও ক্লাস নেওয়ার দরকার নেই। আমরা ব্যাপারটা সামলে নেব। ‌ যদিও টেলিসের এই অভিযোগ মানতে নারাজ কলেজ কর্তৃপক্ষ।

কলেজ কর্তৃপক্ষ টেলিসকেই দায়ী করে বলেন, স্নাতকের পড়ুয়াদের নানা বিষয়ে জ্ঞান দিয়ে তাদের মনঃসংযোগে ব্যাঘাত ঘটাচ্ছিলেন ওই অধ্যাপক।

 
অ্যাসলে টেলিস যে একজন সমকামী, তা কলেজে তাকে নিয়োগ করার আগেই কর্তৃপক্ষ জানতেন। ‌ কর্তৃপক্ষ বলেন, ‌টেলিস তার সীমা অতিক্রম করে গিয়েছিলেন। তার বিরুদ্ধে পড়ুয়া এবং তাদের অভিভাবকদের তরফ থেকে বার বার অভিযোগ আসছিল। কলেজ কর্তৃপক্ষ তাই সিদ্ধান্ত নেয় তাকে কলেজ থেকে সরিয়ে দেওয়ার।

অন্যদিকে, অধ্যাপক তার বিভিন্ন ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে তার চাকরি যাওয়ার পিছনে কলেজ কর্তৃপক্ষকেই দায়ী করছেন। টেলিস বলেন, ‌ক্লাসরুমের মধ্যে আমি পড়ুয়াদের সঙ্গে সব ধরনের বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে পারি। কোনও কোনও সময় তা বিভিন্ন ধরনের যৌন প্রবৃত্তি নিয়েও হতে পারে। সমকামীদের নিয়ে সমাজ আসলে কী ভাবে তারই পরিচয় দিল কলেজ কর্তৃপক্ষ। ‌ এই পোস্ট ফেসবুকে দেওয়ার পরে বহু প্রাক্তন পড়ুয়া অধ্যাপককে সমর্থন করেছেন। ২০১০ সালে যৌন প্রবৃত্তির জন্যই হায়দরাবাদের তথ্যপ্রযুক্তি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে টেলিসকে সরিয়ে দেওয়া হয়। ‌


মন্তব্য