kalerkantho


ভারতে আইএসের শিকড় কত গভীরে, প্রশ্ন?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ মার্চ, ২০১৭ ১২:১২



ভারতে আইএসের শিকড় কত গভীরে, প্রশ্ন?

ভারতের মাটিতে আইএসের শিকড় বিস্তারের আশঙ্কা অনেক দিন ধরেই ছড়াচ্ছে৷ মঙ্গলবার সকালে ভোপাল-উজ্জয়িনী প্যাসেঞ্জার ট্রেনে বিস্ফোরণ সে আশঙ্কাতেই সিলমোহর দিল৷ গোয়েন্দাসূত্রে খবর, আইএস মতাদর্শে অনুপ্রাণিত জঙ্গিরা হাত মকশো করার জন্যই এই হামলা চালিয়েছিল৷ আর সেটাই চিন্তায় ফেলেছে গোয়েন্দাদের৷ ট্রেনের আইইডি বিস্ফোরণে ব্যবহূত বিস্ফোরকের মাত্রা আর একটু বেশি হলেই ফল হতো মারাত্মক৷ ফলে, প্রশ্ন উঠছে, জেনেবুঝেই কি স্বল্পমাত্রার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ট্রায়াল রান করে ফেলল আইএস? এ প্রশ্নের উত্তর পেতে দেশজুড়ে তল্লাশি অভিযানে নেমেছে গোয়েন্দারা৷ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের সুস্পষ্ট নির্দেশ, দেশের সব রাজ্যে আইএস সংক্রান্ত যে কোন মডিউল ক্র্যাক করতে গোয়েন্দারা সব রকম চেষ্টা চালাতে হবে৷

এ দেশের লোকদের দিয়েই ভারতে সন্ত্রাসের বীজ বুনেছে আইএস৷ ভারতের জন্য প্রচুর সংখ্যক বোমা প্রস্ত্ততকারক নিয়োগ এবং প্রযুক্তি নির্ভর সন্ত্রাস কৌশল- এই দুই অস্ত্র নিয়েই আঘাত হানতে মরিয়া আইএস৷ গুরুত্বপূর্ণ রাজ্যগুলিকে বেছে আলাদা আলাদা টেরর মডিউল প্রস্ত্তত করছে তারা৷ নেওয়া হচ্ছে স্থানীয় যুবকদের৷ গোয়েন্দা সূত্রে খবর, সেই লক্ষ্যেই উত্তরপ্রদেশ এবং তেলেঙ্গানা থেকে ১৩ জনকে বাছাই করে আইএস তাদের নেটওয়ার্কে সামিল করেছে৷ এদের মধ্যেই তিনজন প্যাসেঞ্জার ট্রেনে বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে৷ তিনজন ছাত্র পরিচয়ে লখনৌয়ে লুকিয়ে ছিল৷ সেখানেই বোমা তৈরির কাজ করত তারা৷

বোমা বানানোর কৌশল শিখেছিল ইন্টারনেটে৷ আইএসের বোমা বিশেষজ্ঞরাই যে অনলাইন প্রশিক্ষণ দিয়েছে, তা জেরায় স্বীকার করেছে জঙ্গিরা৷ এ ছাড়া লখনৌয়ের ওই বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে ডায়রির দুটো পাতা৷ যাতে জঙ্গিদের রোজকার রুটিন লেখা৷ সেখানে উল্লিখিত ফুড প্রিপারেশন- আরএন্ডডি বোমা বানানোর সাংকেতিক শব্দ৷ রুটিনে উল্লিখিত স্পিচ এবং প্ল্যানিং-এর বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানার চেষ্টা করছে গোয়েন্দারা৷ তবে প্রশ্ন একটাই, লখনৌয়ে ভুয়ো পরিচয়ে লুকিয়ে থাকা সইফুল্লাদের হদিশ তিন মাসের মধ্যে কেন পেল না উত্তরপ্রদেশ পুলিশ?

 


মন্তব্য