kalerkantho


মরুর বাতাসে পচা লাশের গন্ধ, বৃহত্তম বধ্যভূমির সন্ধান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৮:০২



মরুর বাতাসে পচা লাশের গন্ধ, বৃহত্তম বধ্যভূমির সন্ধান

ইরাকের মরুর বুকে এখন তীব্র দুর্গন্ধ। নাকে হাতচাপা দিয়ে সেখানে যেতে হয়। খাসফায় যদি যান তো এমন বিদঘুটে পরিবেশের দেখা মিলবে। এখানে রয়েছে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের নৃসংশতার স্বাক্ষী, এক বিশাল বধ্যভূমি। এখানে ৪ হাজার মানুষকে হত্যা করা হয়েছে। এত যুদ্ধ বিগ্রহের পরও এটাকে ইরাকের বৃহত্তম সমাধিস্থল বলে বিবেচনা করা হচ্ছে। এটাকেই সর্ববৃহৎ বধ্যভূমি বলে মনে করছেন স্থানীয় জনগণ, পুলিশ এবং বিভিন্ন সংগঠনে কর্মরত কর্মীরা।

বাগদাদ-মসুলের হাইওয়ের কাছেই এক বিস্তৃত গর্ত। মসুল থেকে মাত্র ৮ কিলোমিটারের পথ। সেখানেই বর্বরতার চরম নমুনার দেখা মিলবে।

প্রত্যক্ষদর্শী এবং পুলিশের পাশাপাশি মানবাধিকার বিষয়ক সংগঠনগুলো একবাক্য বলছে, ইসলামিক স্টেট (যা আইএস, দায়েশ এবং আরো আগে আইএসআইএস/আইএসআইএল নামে পরিচিত) তিন বছর আগে মসুল দখল করে।

তার পর থেকেই ইরাকি বাহিনীর সদস্যদের হত্যা করে এই বধ্যভূমিতে মৃতদেহগুলো ফেলে রাখতো তারা। অধিকাংশকেই গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।

স্থানীয় এক গ্রামবাসী ৪০ বছর বয়সী মাহমৌদ ডেইলি টেলিগ্রাফকে বলেন, দায়েশরা আটককৃতদের সারি সারি মিনিবাস, ট্রাক এবং পিকআপে করে খাসফায় নিয়ে আসতো। বন্দি পুরুষদের দুই হাত পেছনে বাঁধা থাকত। তাদের চোখ কাপড়ে ঢেকে দেওয়া হতো। এই বিশাল গর্তে নিয়ে মাথার পেছনে গুলি করে মারা হতো বন্দিদের।

খুনিদের চেহারা মুখোশে ঢাকা থাকতো বলেও জানান ওই গ্রামবাসী।

এ সপ্তাহের প্রথম দিকে টেলিগ্রাফের সাংবাদিক খাসফার এই বধ্যভূমিতে যান। ইরাকি বাহিনী পুনরায় মসুলের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাতে নেওয়ার পরই এমন সুযোগ আসে। এ শহরটি ২০১৪ সাল থেকেই আইএস এর দখলে ছিল। কিন্তু গত বছরের অক্টোবর থেকে শহর পুনরুদ্ধারের চেষ্টা শুরু করে ইরাকি বাহিনী। গত শুক্রবার ইরাকি বাহিনী শহরের বিমানবন্দরের দখল নেয়।

বলা হয়, বিগত বছরগুলোতে আইএস ইরাকের পুলিশ সদস্য এবং সৈন্যদের ধরে এনে এখানে হত্যাযজ্ঞ সম্পন্ন করতো। ধীরে ধীরে মরুর বুকে স্থান করে নিয়েছে এক বিশাল কবরস্থান।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ তাদের এক প্রতিবেদনে জানায়, গত নভেম্বরে আইএস কমপক্ষে ৩০০ জন পুলিশ সদস্যকে হত্যা করে মসুল থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে কোনো এক স্থানে কবর দেয়।

মসুলের ঠিক বাইরেই একটি স্কুলে আরেকটি বধ্যভূমির সন্ধান পাওয়া গেছে। সেখানে ছিল ১০০টি মৃতদেহ যাদের ধরে মস্তক ছিল না। সূত্র: আরটি

 


মন্তব্য