kalerkantho


মাত্র ৯০ ডলার দিয়ে কিম জং নামকে হত্যা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:৪৪



মাত্র ৯০ ডলার দিয়ে কিম জং নামকে হত্যা

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের সৎভাই কিম জং-নামের খুনের ঘটনায় গ্রেপ্তার ইন্দোনেশিয়ার নারী সিতি আইসিয়াহ বলেছেন, একটি রিয়্যালিটি শোয়ের কৌতুকের অংশ হিসেবে কিম জং-নামের মুখে 'বেবি অয়েল' ঘষে দেওয়ার জন্য তাঁকে ৪০০ রিঙ্গিত (৯০ মার্কিন ডলার) দেওয়া হয়।

গতকাল শনিবার বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে। পরীক্ষা-নিরীক্ষায় দেখা গেছে, জং-নামকে উচ্চমাত্রায় বিষাক্ত রাসায়নিক উপাদান (ভিএক্স নার্ভ এজেন্ট) দিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এই রাসায়নিক জাতিসংঘের গণবিধ্বংসী অস্ত্রের তালিকাভুক্ত।

গত সপ্তাহে কুয়ালালামপুর বিমানবন্দরের চেক ইন হলে দুই নারীর সঙ্গে আলাপ হওয়ার পর কিম জং-নাম অসুস্থ হয়ে পড়েন ও পরে মারা যান। এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ইন্দোনেশিয়ার ওই নারী ছাড়াও ভিয়েতনামের এক নারী ও উত্তর কোরিয়ার এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়। এই হত্যাকাণ্ডের পেছনে উত্তর কোরিয়ার হাত রয়েছে বলে ব্যাপকভাবে সন্দেহ করা হচ্ছে। তবে উত্তর কোরিয়া এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

আজ শনিবার সিতি আইসিয়াহর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন ইন্দোনেশিয়ার উপরাষ্ট্রদূত আন্দ্রিয়ানো এরউইন। তিনি বলেন, তিনি (সিতি) সাধারণভাবে শুধু বলেছেন, কেউ তাঁকে ওই কাজ করতে বলেছে। তিনি যাঁদের সঙ্গে দেখা করেন, তাঁরা দেখতে জাপান বা কোরিয়ার নাগরিকদের মতো।

তিনি জানিয়েছেন, ওই কাজের জন্য সেই ব্যক্তি তাঁকে ৪০০ রিঙ্গিত দেন। তাঁকে শুধু বলা হয়েছিল, এক প্রকারের বেবি অয়েল তাঁকে দেওয়া হয়েছে।

কর্মকর্তারা বলেছেন, সন্দেহভাজন ওই নারীর শরীরে রাসায়নিকের কোনো প্রভাবের চিহ্ন তাঁরা দেখেননি। ভিয়েতনামের কর্মকর্তারাও গ্রেপ্তার হওয়া তাঁদের দেশের নাগরিকের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। তবে ওই কর্মকর্তারা এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি।

গত শুক্রবার মালয়েশিয়ার পুলিশপ্রধান খালিদ আবু বকর বলেন, জং-নামের চোখ ও মুখমণ্ডল থেকে সংগৃহীত নমুনায় নার্ভ এজেন্টের উপস্থিতির প্রমাণ মিলেছে। বিমানবন্দরে তাঁর সঙ্গে এক নারীর কথাবার্তা হয়েছিল। তিনিও কিছুক্ষণ পরই অসুস্থ হয়ে পড়েন ও বমি করেন। কীভাবে ওই নিষিদ্ধ রাসায়নিক উপাদান মালয়েশিয়ায় প্রবেশ করল, তা পুলিশ খতিয়ে দেখছে। বস্তুটি যদি খুব সামান্য পরিমাণে আনা হয়ে থাকে, তা শনাক্ত করা কঠিন হবে।


মন্তব্য