kalerkantho


অন্তঃসত্ত্বা নারীর পেটে লাথি, গ্রেপ্তার বিজেপি নেতা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:২৪



অন্তঃসত্ত্বা নারীর পেটে লাথি, গ্রেপ্তার বিজেপি নেতা

প্রতিবাদ করলে প্রতিবাদীর উপর আক্রান্তের ঘটনা প্রায় শোনা যায়। জোরে মাইক বাজানোর প্রতিবাদ করায় ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা নারীর পেটে লাথি মারে স্থানীয় বিজেপি নেতা ও গ্রামপঞ্চায়েত প্রধান পলাশ বিশ্বাস। এই ঘটনার জেরে নারীর গর্ভস্থ সন্তানের মৃত্যু হয়। ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার ধুবুলিয়া থানার সাধানপাড়া ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের তাতলা গ্রামে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, তাতলা গ্রামের সঞ্জয় সাঁতরা ও তাঁর স্ত্রী মায়া সাঁতরা গ্রামের কীর্তনের অনুষ্ঠান চলাকালীন মাইকের আওয়াজ কমানের জন্য অনুরোধ করে গত মঙ্গলবার। প্রতিবাদ করায় কীর্তন কমিটির প্রধান স্থানীয় বিজেপি নেতা পলাস বিশ্বাস ও তাঁর দলবল মায়া সাঁতরার ভাই ও দেওরের উপর চড়াও হয়। ভাই ও দেওরকে মায়া সাঁতরা বাঁচাতে গেলে বিজেপি নেতা নারীর পেটে লাথি মারে। তখন গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় মায়া সাঁতরাকে ধুবুলিয়ার গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বুধবার চিকিৎসকের পরামর্শে কৃষ্ণনগর সদর হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। সেদিন রাতে মায়া সাঁতরার গর্ভস্থ সন্তানের মৃত্যু হয়।

এরপর মায়া সাঁতরার স্বামী সঞ্জয় সাঁতরা বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে ধুবুলিয়া থানায় মামলা দায়ের করে।

বৃহস্পতিবার রাতে বিজেপি নেতা ও সাধানপাড়া ২ নম্বর গ্রামপঞ্চায়েত প্রধান পলাশ বিশ্বাসকে তার বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে ধুবুলিয়া থানার পুলিশ। সাঁতরা পরিবারের পক্ষথেকে অভিযুক্ত বিজেপি নেতার কঠোর শাস্তির দাবি করা হয়েছে।

সূত্র: আজকাল


মন্তব্য