kalerkantho


কলকাতার বেসরকারি হাসপাতালের কর্মকাণ্ড নিয়ন্ত্রণে আনতে কমিশন গঠন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৩৭



কলকাতার বেসরকারি হাসপাতালের কর্মকাণ্ড নিয়ন্ত্রণে আনতে কমিশন গঠন

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের বেসরকারি হাসপাতালগুলোর কর্মকান্ড নিয়ন্ত্রণ ও নজরদারি বাড়াতে আইন পরিবর্তন এবং একটি বিশেষ কমিশন গঠনের ঘোষণা দিয়েছেন।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে রোগীদের হেনস্তা করা বন্ধ করতে কড়া বার্তা দিয়েছেন।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অকারণে চিকিৎসার বিল বাড়ানো, আপদ-কালীন চিকিৎসা না দেয়া, বিনা কারণে নানা ধরনের পরীক্ষা করাতে বাধ্য করা, এমনকি টাকা না পেলে মৃতদেহ আটকে রাখাসহ সরকারের কাছে জমা পড়া নানা অভিযোগ নিয়ে বেসরকারি হাসপাতালগুলোর সঙ্গে বুধবার বৈঠক করেছেন।

বৈঠকে তিনি উল্লেখ করেছেন, তার কাছে বেসরকারি হাসপাতালগুলো রোগীর পরিবারের ওপর অহেতুক বাড়তি বিল চাপাচ্ছে বলে অভিযোগ এসেছে। বৈঠকে বিভিন্ন হয়রানি ও হেনস্তা বিষয়ে প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে বেসরকারি হাসপাতালের মালিক ও কর্মকর্তাদের বেশ বেগ পেতে হয়।

বৈঠকেই মুখ্যমন্ত্রী জানান, বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে নিয়ন্ত্রণে কয়েকদিনের মধ্যেই আইন পরিবর্তন করা হবে। নজরদারির জন্য ১০ সদস্যবিশিষ্ট একটি কমিশনও গঠিত হবে। এ কমিশন প্রতিটি হাসপাতালের কর্মকা নিয়ে প্রতি মাসে রিপোর্ট তৈরি ও পেশ করবে। গত সপ্তাহে কলকাতার বড় একটি বেসরকারি হাসপাতালে রোগী মৃত্যুকে কেন্দ্র করে ব্যাপক ভাঙচুর চালানোর পরেই সরকার বেসরকারি চিকিৎসা ব্যবস্থায় যুক্তদের সঙ্গে এরকম একটি বৈঠক করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। তার আগেই প্রায় হাজার খানেক বেসরকারি হাসপাতালে নিজস্ব সমীক্ষা চালিয়েছে সরকার। শোকজ আর লাইসেন্স বাতিলও হয়েছে অনেকের।

পশ্চিমবঙ্গের বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে শুধু কলকাতা বা পার্শ্ববর্তী জেলা বা রাজ্যের মানুষ নয় বাংলাদেশ থেকেও হাজার হাজার রোগী নিয়মিত চিকিৎসা করাতে আসেন। বাংলাদেশের রোগীদের কেন্দ্র করে দক্ষিণ আর দক্ষিণ পূর্ব কলকাতায় রীতিমতো মেডিকেল হাব গড়ে উঠেছে। এর মধ্যে হাসপাতাল ছাড়া আনুসঙ্গিক ব্যবস্থার জন্য সেখানে গেস্ট হাউস, খাবার দোকান, বিদেশী মুদ্রা বিনিময়সহ নানা পরিসেবা ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে।


মন্তব্য