kalerkantho


খেলতে খেলতেই আগুনে পুড়ে শিশুর মৃত্যু

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৩৭



খেলতে খেলতেই আগুনে পুড়ে শিশুর মৃত্যু

বাবা-মা পেশার তাগিদে সকাল হতেই কাজে বেরিয়ে যান। শনিবারও সকালে বেরিয়ে গিয়েছিলেন তারা। ঘরে একা রেখেছিলেন তিন বছরের ছোট্ট শিশুটিকে। কিন্তু সেটাই কাল হল। ফাঁকা ঘরের মধ্যে খেলতে খেলতেই আগুনে পুড়ে মারা গেল তিন বছরের শিশু কৌস্তুভ। শনিবার বেহালার বামাচরণ রোডে মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে।

এদিন সকাল ৭টার দিকে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান পেশায় লরিচালক কৌস্তুভের বাবা বিশ্বনাথ। কিছুক্ষণ পর বেরিয়ে যান মা। সে সময় বন্ধ বাড়িতে খেলা করছিল সে। সকাল ৮টার দিকে হঠাৎ পোড়া গন্ধ পান প্রতিবেশীরা। এসে দেখেন দাউ দাউ করে জ্বলছে বাড়িটি।

তাঁরা জানতেন ভেতরে একা থাকে বাচ্চাটি। তাই তড়িঘড়ি সবাই আগুন নেভানোর কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। দমকল বাহিনীকে খবর দেয়া হয়। ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায় দমকলের দু’টি ইঞ্জিন। ততক্ষণে যা হওয়ার হয়ে গেছে। আগুন থেকে বাঁচতে হাজার চেষ্টা করেও সফল হয়নি শিশুটি। শরীরের বেশিরভাগ অংশই পুড়ে যায়। এরপর শিশুটিকে উদ্ধার করে বিদ্যাসাগর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেখানে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। তবে সন্দেহ, ঘরে জ্বলতে থাকা মশার ধূপ থেকেই আগুন লেগেছে। অনেকে মনে করছেন, শটসার্কিট থেকেই দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। এ ঘটনায় পুরো এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা বলছেন, ‘অনেক চেষ্টা করেও শিশুটিকে বাঁচানো গেল না এটাই আফশোস!’ পরে শিশুটির বাবা ও মাকে খবর দেয়া হয়৷ ঘটনার কথা জানার পরই কান্নায় ভেঙে পড়েন তাঁরা৷ শিশুটির বাবা জানিয়েছেন, দারিদ্র্য বড় অভিশাপ৷ কাজ না করলে ভাত জোগাড় হবে না৷ তাই বাধ্য হয়েই দু’জনে কাজ করি৷ কিন্তু এভাবে ছেলেকে হারাতে হবে বুঝতে পারিনি।  

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন


মন্তব্য