kalerkantho


সম্পর্ক পুনঃপ্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে মেক্সিকো সফরে যাচ্ছেন ট্রাম্পের দুই মন্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০৩:২৬



সম্পর্ক পুনঃপ্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে মেক্সিকো সফরে যাচ্ছেন ট্রাম্পের দুই মন্ত্রী

ডোনাল্ড ট্রাম্প গঠনমূলক সম্পর্ক পুনঃপ্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে মেক্সিকো সফরে যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের দুই মন্ত্রী। ট্রাম্পের মন্ত্রিসভার এ দুই সদস্য হচ্ছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন এবং হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিষয়ক মন্ত্রী জন কেলি। আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি তারা মেক্সিকো সফরে যাবেন। বুধবার মেক্সিকোর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে তাদের সফরের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

মেক্সিকোর কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, দুই দেশের মধ্যে একটি সম্মানজনক, ঘনিষ্ঠ ও গঠনমূলক সম্পর্ক তৈরির লক্ষ্যে তারা এ সফরে আসছেন। মেক্সিকোর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, গত ২৭ জানুয়ারি দুই দেশের প্রেসিডেন্ট টেলিফোনে আলাপকালে সংলাপ শুরুর ব্যাপারে একমত হয়েছিলেন। তারই সূত্র ধরে আমেরিকার দুই মন্ত্রী মেক্সিকো আসছেন। মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, রেক্স টিলারসন এবং জন কেলির মেক্সিকো সফরের আলোচ্যসূচি পরে জানানো হবে।

নির্বাচনি প্রচারণা থেকে শুরু করে মার্কিন প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণের পরও মেক্সিকো বিরোধী বক্তব্য দিয়ে বারবার সংবাদমাধ্যমের শিরোনাম হয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। মেক্সিকান অভিবাসীদের ধর্ষক এবং অপরাধী বলেও মন্তব্য করেছিলেন তিনি। ২৫ জানুয়ারি ২০১৭ তারিখে বহুল আলোচিত যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেন ট্রাম্প।

এই দেয়াল নির্মাণের খরচের শতভাগ মেক্সিকো বহন করবে বলেও দাবি করেন তিনি। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারণায় ট্রাম্প একাধিকবার উল্লেখ করেছিলেন, তিনি ক্ষমতায় এলে মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল তুলবেন। আর সেই দেয়ালের খরচ জোগাতে হবে মেক্সিকোতেই। প্রেসিডেন্ট হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমতা গ্রহণের মাত্র ছয় দিনের মাথায় তিনি সেই দেয়াল নির্মাণের জন্য নিজের নির্বাহী ক্ষমতা প্রয়োগ করলেন।

এ সংক্রান্ত নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষরের সময় ট্রাম্প বলেন, আমরা একদম শুরু থেকেই এটা নিয়ে কথা বলে আসছি। ট্রাম্প বলেন, নিশ্চিতভাবেই এই দেয়াল নির্মাণের শতভাগ ব্যয় বহন করবে মেক্সিকো। মেক্সিকোর বিরুদ্ধে ট্রাম্পের এমন আক্রমণাত্মক নীতির প্রতিবাদে সম্প্রতি দেশটির রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করেন হাজারো মানুষ। সাদা পোশাকে মেক্সিকান পতাকা আর ট্রাম্পবিরোধী বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড হাতে বিক্ষোভে নামেন তারা। এমন পরিস্থিতিতে প্রতিবেশি দেশটিতে সফরে যাচ্ছেন ট্রাম্প প্রশাসনের দুই প্রভাবশালী মন্ত্রী


মন্তব্য