kalerkantho


নীলছবিতে আসক্ত স্বামী, সুপ্রিম কোর্টে গেলেন স্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২০:১৪



নীলছবিতে আসক্ত স্বামী, সুপ্রিম কোর্টে গেলেন স্ত্রী

প্রতীকী ছবি

দিনের বেশিরভাগ সময় স্বামী পর্নোগ্রাফি দেখেন। তাই পর্ন সাইট বন্ধ করার দাবিতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হলেন এক মহিলা। ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লিতে।

ওই মহিলা জানিয়েছেন, দিনের বেশিরভাগ সময়ই স্বামী পর্ন ছবি দেখেন। যার ফলে দৈনন্দিন কাজে ব্যাহত হচ্ছে। এমনকী, বৈবাহিক সম্পর্কেও চিড় ধরছে তাঁদের।

তাঁর অভিযোগ, বর্তমানে ইন্টারনেটে খুব সহজেই মিলছে পর্ন ছবি ও ভিডিও। যার ফলে তাঁর স্বামী সারাদিন সেগুলিই দেখছেন। স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানোর পাশাপাশি ওই মহিলার দাবি, অবিলম্বে পর্নসাইটগুলি বন্ধ করা হোক।

পেশায় সোশাল ওয়ার্কার ওই মহিলা আদালতকে আরও জানিয়েছেন, গত ৩০ বছর ধরে বেশ সুখেই চলছিল তাঁদের সংসার। কিন্তু, ২০১৫ সাল থেকে তাঁর স্বামী পর্নোগ্রাফিতে আসক্ত হয়ে পড়েন।

আর তখন থেকেই তিনি ও তাঁর দুই সন্তান এর কুফল ভোগ করছেন। অবশ্য শুধু তাঁর স্বামী নয় পর্নোগ্রাফির সহজলভ্যতার জন্য অনেক সাধারণ মানুষও বিভিন্ন সমস্যায় পড়ছেন। এর ফলে ভারতীয় সভ্যতায় যে পারিবারিক মূল্যবোধের শিক্ষা দেওয়া হয়েছে তা পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে যাবে।  

তাঁর কথায়, তাঁর স্বামী একজন অভিজ্ঞ মানুষ। তারপরেও তিনি যেভাবে পর্নোগ্রাফিতে আসক্ত হয়ে পড়েছেন। তাতে তিনি চিন্তিত যে এগুলি কীভাবে কিশোর ও যুবমনে প্রভাব ফেলছে। তাই এই পর্ন সাইটগুলি বন্ধ করার জন্য সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন জানিয়েছেন তিনি।

কিছুদিন আগেই দেশের সর্বোচ্চ আদালত কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে শিশু পর্নোগ্রাফি বন্ধ করার ক্ষেত্রে পরিকাঠামোগত সমস্যার যে অজুহাত দেওয়া হয়েছিল তা খণ্ডন করে দেয়।

এই বিষয়ে দেশের সর্বোচ্চ আদালতের বক্তব্য ছিল, ওই ওয়েবসাইটগুলি শুধুমাত্র টাকা কামানোর লোভেই এই ধরনের পর্নোগ্রাফি বাজারে ছড়িয়ে দিচ্ছে। কোনও অজুহাত না দিয়ে সরকারের উচিত এই বিষয়ে তথ্যপ্রযুক্তিবিদদের সঙ্গে আলোচনা বসে এই ধরনের ওয়েবসাইটগুলি বন্ধ করার ব্যবস্থা করা। ভারতীয় আইন মোতাবেক এই ধরনের ঘটনা কখনই মেনে নেওয়া যায় না। তাই এই ধরনের ওয়েবসাইট তাড়াতাড়ি বন্ধ করতে হবে।  


মন্তব্য