kalerkantho


ফুলসজ্জার রাতে স্ত্রীর কাছে অপমানিত, আত্মঘাতী স্বামী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৫:০৮



ফুলসজ্জার রাতে স্ত্রীর কাছে অপমানিত, আত্মঘাতী স্বামী

বিয়ের পর চার দিন কাটতে না কাটতেই স্বামীর অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘিরে উত্তেজনা ছড়িয়েছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের সালকিয়ায়। অভিযোগ, ফুলসজ্জার রাতে নতুন বউয়ের কথায় অপমানিত হয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন তিনি। শারীরিক সমস্যা নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অশান্তি বাধে। অপমান সহ্য করতে না পেরে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন হাওড়ার সালকিয়ার চন্দ্রশেখর নন্দী।

হুগলীর চুঁচুড়ার বাসিন্দা মাধবীর (নাম পরিবর্তিত) সঙ্গে দেখাশোনা করে বুধবার বিয়ে হয় সালকিয়ার চন্দ্রশেখরের (৩৮)। ফুলশয্যার রাতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে গোলমাল হয়। অভিযোগ, স্ত্রীর কথায় অপমানিত হয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি। মাধবীর বক্তব্য, তার স্বামী কিছু রোগ গোপন করেছিলেন। এই গোপনীয়তা মেনে নিতে পারেননি তিনি। গোপনীয়তার কারণ জানতে চেয়েছিলেন স্বামীর কাছে। কিন্তু চন্দ্রশেখরের পরিবারের লোকজনের দাবি, মাধবীর এই অভিযোগ মিথ্যা।

সামান্য চর্মরোগ ছিল চন্দ্রশেখরের, কিছুদিনের মধ্যে তা সেরে যেত। কিন্তু মাধবী তাকে কদর্য ভাষায় অপমান করেন। তা সহ্য করতে না পেরেই আত্মঘাতী হয়েছে তাদের পরিবারের ছেলে। মাধবী-চন্দ্রশেখরের শোওয়ার পাশের ঘরে আজ সকালে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়।

মৃত চন্দ্রশেখরে দশকর্মার ব্যবসা ছিল। সালকিয়ার ফুটানি বাজারে দোকান ছিল তার। পাঁচ বোনকে বিয়ে দেওয়ার পর বুধবার বিয়ে করেন তিনি। একদিন পর শুক্রবার ফুলসজ্জা হলেও বউভাতের অনুষ্ঠান ছিল আজ। সালকিয়ায় শীতলা মায়ের স্নানযাত্রা থাকায় বউভাতের অনুষ্ঠান আজকে করার কথা ছিল। তার আগেই চন্দ্রশেখরের মৃতদেহ উদ্ধার হয়।


মন্তব্য