kalerkantho


ইসরায়েলে শব্দ করে আজান বন্ধে আইন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১১:০৫



ইসরায়েলে শব্দ করে আজান বন্ধে আইন

ইসরায়লে শব্দ করে আজান দেওয়া বন্ধ করতে একটি আইনের খসড়ায় অনুমোদন দিয়েছে দেশটির বিচার মন্ত্রণালয়। 'উপাসনার জন্য পাবলিক প্লেসে শব্দ প্রতিরোধ বিল' শীর্ষক ওই আইনের খসড়াটি মন্ত্রণালয়ের বৈঠকে উপস্থাপন করা হয় এবং তা কণ্ঠ ভোটে পাস করা হয়। তবে মন্ত্রণালয় থেকে এর বেশি কিছু জানানো হয়নি। ইয়াহু নিউজের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

দেশটির বিচারমন্ত্রী আইলেট শেকডের নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে অনুমোদিত আইনের খসড়াটি এখন সরকারি বিল হিসেবে সংসদে উপস্থাপন করা হবে। যদিও ওই আইনের খসড়ায় নির্দিষ্ট কোনো ধর্মের কথা উল্লেখ করা হয়নি। আইনটি সাধারণত 'মুয়াজ্জিন আইন' হিসেবে পরিচিত। এর আগে এ আইনের খসড়াটি বাতিল করা হয়। যেখানে শুক্রবার সূর্য ডোবার পর উপাসনালয়গুলোতে সব প্রকার শব্দ নিষিদ্ধ করা হয়।

পরে খসড়াটি সংশোধন করে রাত ১১টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত ধর্মীয় উপাসনালয়গুলোতে সব ধরনের শব্দ নিষিদ্ধ করা হয়। ফলে মুসলমানদের দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের প্রথম ওয়াক্তের আজানও নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব করা হয়।

এক বার্তায় ইসরায়েলের সংসদ সদস্য আইমান ওডেহ জানিয়েছেন, এই আইন শব্দ প্রতিরোধ বা মানসম্পন্ন জীবন নিশ্চিতের সঙ্গে সম্পর্কিত নয়। শুধুমাত্র সংখ্যালঘুদের মধ্যে একটি বর্ণবাদী উসকানি সৃষ্টি করতে এই আইন করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, 'এখানে নেতানিয়াহু সরকারের বর্ণবাদীদের কাছে মুয়াজ্জিনের কণ্ঠ অনেক দীর্ঘ মনে হয় এবং তারা তা বন্ধ করতে উঠেপড়ে লেগেছে। '

ইসরায়েলের রাষ্ট্রপতি রিউভেন রিভলিন এই আইনের বিরুদ্ধে কথা বলেছেন, যা আরব ও মুসলিম দেশগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। এই আইনের প্রস্তাবকারী মতি জাগেভ বলেন, 'আজানের কারণে সৃষ্ট ইসরায়েলের লাখ লাখ অমুসলিমদের দৈনন্দিন অসুবিধা সমাধানে এই আইন করার প্রয়োজনীয়তা লক্ষ করা গেছে। '


মন্তব্য