kalerkantho


‘অত্যাচার ও স্বৈরসাশনের দেশের নেতা বারাক ওবামা’

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০১:২৯



‘অত্যাচার ও স্বৈরসাশনের দেশের নেতা বারাক ওবামা’

আমেরিকার ৯/১১ স্মৃতি আবার উস্কে দিল খালিদ শেখ মহম্মদের একটি চিঠি। আমেরিকার ট্রেড সেন্টার হামলার স্বঘোষিত মূল চক্রী প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্টকে একটি চিঠি লেখে। আমেরিকার বৈদেশিক নীতির ফলাফল স্বরূপই আমেরিকার ট্রেড সেন্টারে হামলা চালানো হয় বলে, এই চিঠিতে লেখে খালিদ শেখ মহম্মদ।

১৮ পাতার এই চিঠিতে খালিদ ,লিখেছে, ‘সাপের মাথা বারাক ওবামা’। এরপর ওবামাকে সে বলে ‘নিপীড়ন ও স্বৈরশাসনের দেশের নেতা’। খালিদ শেখ মহম্মদ এই চিঠিটি লিখতে শুরু করেছিল ২০১৫ সালের ৮ জানুয়ারি। ১৮ পাতার চিঠিটির উপর এমনই লেখা আছে। কিন্তু চিঠিটি আমেরিকায় এস পৌঁছায় দু’বছর পর। ওবামার প্রেসিডেন্টের আসন ছাড়ার কয়েকদিন আগে তাঁর হাতে এসে পৌঁছায় এই চিঠি। চিঠিটি লেখার সময় খালিদ গুয়ানতানামোর জেলে বন্দি ছিলেন। অবশেষে সেনা আদালত থেকে নির্দেশ পাওয়ার পর সেই চিঠিটি পাঠানো হয়।

এই চিঠিতে সে আরও লেখে, ‘আমরা তোমাদের বিরুদ্ধে ৯/১১তে যুদ্ধ শুরু করিনি। তোমরা এবং তোমাদের শাসকরাই আমাদের জমিতে ঢোকে’। এরপর সে দাবি করে যে আল্লাহ হাইজ্যাকারদের আমেরিকার পুঁজিবাদকে ধ্বংস করতে সাহায্য করেছিলেন। এর সাহায্যেই স্বাধীনতা ও গণতন্ত্র নিয়ে আমেরিকার দ্বিচারিতা বেরিয়ে পড়ে।

হিরোসিমা নাগাসিকা, ভিয়েতনাম, ও গাজার প্রসঙ্গ টেনে এনেও আমেরিকাকে দোষারোপ করে। সে চিঠিটি শুরুই করে এই লিখে, ‘তোমাদের হাত এখনও গাজায় নিহত ভাই, বোন ও শিশুদের রক্তে ভেজা’।

সেই চিঠিতে খালিদ বলে যে মৃত্যুকে ভয় পায় না সে। সে লেখে, ‘আমায় যদি যাবজ্জীবন কারাদণ্ডও দেয়া হয়, আমি খুব খুশি হব জেলে বসে আল্লার নাম করব আর সারা জীবনে করা পাপের জন্য অনুশোচনা করব’।

খালিদ এর এই চিঠিতে নড়ে চড়ে বসেছে মার্কিন সরকার।

সূত্র: কলকাতা


মন্তব্য