kalerkantho


ইভাঙ্কার ব্র্যান্ড রিজেক্ট, ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের বিরুদ্ধে ট্রাম্পের ক্ষোভ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:১৭



ইভাঙ্কার ব্র্যান্ড রিজেক্ট, ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের বিরুদ্ধে ট্রাম্পের ক্ষোভ

সদ্য নির্বাচিত হওয়া মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইট করে একটি ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের বিরুদ্ধে লাগতেও পিছপা হননি!

দুর্ব্যবহারই কার্যত ‘মু্খ্য’ হয়ে উঠেছে নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের। যাঁকে তাঁর পছন্দ নয়, তাঁর সঙ্গেই প্রচণ্ড দুর্ব্যবহার করতে শুরু করেছেন তিনি। আর প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এই দুর্ব্যবহারের কোপ থেকে রেহাই পাচ্ছেন না কেউই। রেহাই পাননি বন্ধু দেশ অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ও মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট। কোর্টের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছেন নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। শপথের দিন আর তার পরেও একদিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প চরম দুর্ব্যবহার করেছেন সাংবাদিকদের সঙ্গেও।

সেই তালিকায় জুড়ল এবার ডিপার্টমেন্টাল স্টোর ‘নর্ডস্ট্রম’-এর নাম। ওই রিটেল স্টোরটি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কন্যা ইভাঙ্কার ব্র্যান্ডের কাপড়, জুতা রাখতে অস্বীকার করেছে। স্টোরটির যুক্তি, ওই ব্র্যান্ডের কাপড়, জুতা তাঁদের খদ্দেররা কিনছেন না। জানুয়ারিতে সে কথা তাঁরা জানিয়েও দিয়েছেন ট্রাম্প-কন্যা ইভাঙ্কাকে। আর তাতেই বেজায় চটে গেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

একেবারে টুইট করে তোপ দেগেছেন ওই ডিপার্টমেন্টাল স্টোরটির বিরুদ্ধে।

ট্রাম্প তাঁর টুইটে লিখেছেন, ‘নর্ডস্ট্রম আমার কন্যা ইভাঙ্কার সঙ্গে অত্যন্ত খারাপ আচরণ করেছে। ও (ইভাঙ্কা) দারুণ মেয়ে। ও (ইভাঙ্কা) সব সময় আমাকে সঠিক পরামর্শ দেয়। অসহ্য!’ তাঁর সেই টুইট নিয়ে তোলপাড় হচ্ছে এখন সোশ্যাল মিডিয়ায়। একজন মার্কিন প্রেসিডেন্ট এইভাবে তাঁর পরিবারের জন্য একটা ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে কটাক্ষ করতে পারেন কি না, তা নিয়ে চলছে তুমুল সমালোচনা।

তবে হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি সিয়ান স্পাইসার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের পক্ষ সমর্থন করে বলেছেন, ‘উনি (ডোনাল্ড ট্রাম্প) ওঁর পরিবারের পাশে দাঁড়াতেই পারেন। ওঁর পরিবারের উন্নতির দেখভাল করাটাও তো ওঁর কর্তব্যই। এতে অন্যায়ের কী আছে!’

সূত্র: আনন্দবাজার


মন্তব্য