kalerkantho


মৃত্যুর জন্য দায়ী প্রেমিক, থানায় গেলেন অভিনেত্রীর মা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



মৃত্যুর জন্য দায়ী প্রেমিক, থানায় গেলেন অভিনেত্রীর মা

টলিউড অভিনেত্রী বিতস্তা সাহাকে খুন করেছে তাঁরই প্রেমিক? পুলিশের কাছে অন্তত তেমন অভিযোগ করল অভিনেত্রীর পরিবার। বুধবার সকালে পশ্চিম বঙ্গের গরফা থানায় এই মর্মে একটি লিখিত অভিযোগও দায়ের করা হয়েছে।

এ দিন পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে গরফা থানায় যান বিতস্তার মা গীতাদেবী। তাদের স্পষ্ট অভিযোগ, আত্মহত্যা নয়, বিতস্তাকে খুন করেছে তার প্রেমিক। তারা জানিয়েছেন, সৈকত মিত্র নামে মাঝবয়সী ব্যক্তির সঙ্গে সম্পর্ক ছিল বিতস্তার। পেশায় তিনি আয়কর বিভাগের কর্মী। গত শনিবার বিতস্তার মায়ের সঙ্গেও এক বার দেখা করতে এসেছিলেন তিনি। প্রাথমিক ভাবে পুলিশের অনুমান, এটা আত্মহত্যার ঘটনা। তবে পুলিশের এই যুক্তি মানতে নারাজ বিতস্তার পরিবার। পরিবারের দাবি, বিতস্তা আত্মহত্যা করার মতো মেয়েই নয়। ওকে প্ররোচিত করা হয়েছিল।

পরিবারের অভিযোগ, এক মাঝবয়সী বিবাহিত ব্যক্তির প্রেমে পড়ে নিজের ঘর ছেড়েছিলেন বিতস্তা। থাকতেন ইএম বাইপাসের অভিজাত এক আবাসনে। তবে, বাড়ি ছাড়লেও মায়ের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল। ছিল নিয়মিত যাতায়াতও। বিতস্তার মা গীতাদেবী জানিয়েছেন, গত শনিবার থেকে তার সঙ্গে আর কোনও যোগাযোগ করেননি বিতস্তা। তাতেই সন্দেহ হয় গীতাদেবীর। মেয়ের খোঁজে গত কাল বিকেলে তার আবাসনে পৌঁছান তিনি। কিন্তু, অনেক ডাকাডাকি করলেও দরজা খোলেননি বিতস্তা। আবাসনের অন্য বাসিন্দা এবং কেয়ারটেকারকে বিষয়টা জানানো হলে তারাই পুলিশে খবর দেন। পুলিশ এসে দরজা ভেঙে বিতস্তার মরদেহ উদ্ধার করে। গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় সিলিং ফ্যান থেকে ঝুলছিল তার দেহ। রক্তাক্ত সেই দেহ নামানো হলে দেখা যায়, তার বাঁ হাতের শিরা কাটা। তাতেই সন্দেহ দানা বাঁধে। পুলিশ প্রাথমিক ভাবে একে আত্মহত্যার ঘটনা বললেও বেশ কিছু বিষয়ে এখনও ধোঁয়াশা রয়েছে।

কেন বিতস্তার হাতের শিরা কাটা? অন্য দিকে, হাতের শিরাই কাটাই অবস্থায় কী ভাবে ফাঁস দিয়ে ঝুললেন তিনি? এটা যদি আত্মহত্যার ঘটনা হয় তবে বিতস্তা একা একা গলায় ফাঁস দিয়ে হাতের শিরাই বা কাটলেন কী করে? উঠছে একাধিক প্রশ্ন!


মন্তব্য