kalerkantho


আদিবাসী মহিলার বিবস্ত্র দেহ উদ্ধার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১০:৪৫



আদিবাসী মহিলার বিবস্ত্র দেহ উদ্ধার

এক আদিবাসী মহিলার বিবস্ত্র মৃতদেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে আতঙ্ক ছড়াল। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার বিকেলে। জলপাইগুড়ির কোতোয়ালি থানার অন্তর্গত বোদাগঞ্জ এলাকায়। জানা গিয়েছে, মৃতার নাম মিনা ওরাও (৪০)। পরিবারের অভিযোগ ধর্ষণের পর খুন করা হয়েছে তাকে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছায় জলপাইগুড়ির ডিএসপি মানবেন্দ্র দাসসহ বিশাল পুলিশে বাহিনী। পুলিশ কুকুর দিয়ে এলাকায় শুরু হয় তদন্ত। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তর জন্য পাঠিয়েছে।

ওই মহিলার পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, বারোপাটিয়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার ভান্ডিরগুড়ি চা বাগানের চেলি লাইনের নন্দন ওরাও এর স্ত্রী মিনা ওরাও। তিনি রবিবার সকালে কাজের মজুরির টাকা আনতে যাচ্ছি বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর বাড়ি ফেরেনি। সোমবার দুপুরে তার বাড়ি থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে ভোগলাভিটা গ্রামের পাশে এক মাঠে মিনা ওরাও এর মৃতদেহ দেখতে পান এলাকার বাসিন্দারা।

মহিলার দেহ বিবস্ত্র থাকলেও একটি কাপড় দিয়ে ঢাকা ছিল। পড়নের পোশাকের টুকরো, চাদর, চপ্পল ও বাজারের ব্যাগ পাশেই পড়েছিল। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই গরিব মহিলা আগে ভান্ডিরগুড়ি চা বাগানে কাজ করতেন।

তার স্বামী ছাড়াও দুই ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। রবিবার ওই এলাকারই মেচপাড়ার জনৈক ব্যক্তির কাছে পাওনা মজুরির টাকা আনার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়। তার পর বাড়ি ফেরেনি। পরের দিন দুপুরে পাশের গ্রামের ফাঁকা মাঠ থেকে বিবস্ত্র মৃতদেহ উদ্ধার হয়। ঘটনাস্থলে দাঁড়িয়ে, মিনা ওরাও এর ছেলে স্বপন ওরাও, স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য রঞ্জিত রায় এবং গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান কৃষ্ণ দাস বলেন, মৃতদেহ দেখে অনুমান ধর্ষণ করার পর খুন করা হয়েছে। তাই পুলিশের কাছে সঠিক তদন্ত করে অপরাধীদের কঠিন শাস্তির দাবি জানাবেন।

 


মন্তব্য